নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নগরীর পাইকপাড়া (আল বারাকা) সংলগ্ন এলাকা থেকে কোচিং সেন্টারের ভেতরে ছাত্রকে বলাৎকারের দায়ে নাইম (২২) নামের এক লম্পট আরবী শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ।
মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সকাল ৮টায় শহরের পাইকপাড়া আল বারাকা সংলগ্ন এলাকার জামাল মিয়ার বাড়ি থেকে লম্পট আরবী শিক্ষক নাইমকে গ্রেফতার করে সদর মডেল থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত নাইম বগুড়া জেলার সাড়িয়াকান্দি থানার জোরগাছা গ্রামের বজলুল রহমানের ছেলে। এ ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

মামলার বিবরনে শিশু সাগর (১০) ছদ্ধনাম এর মা জানান, পাইকপাড়া এলাকার জামাল মিয়ার বাড়িতে এই আরবী শিক্ষাক বছর খানেক ধরে ছোট ছোট শিশুদের আরবী পড়ানোর জন্য একটি কোচিং সেন্টার চালু করেন। আমার ছেলে সাগর (ছদ্ম নাম) গত ৮ মাস যাবত এই শিক্ষকের নিকট আরবী পড়েন। প্রতিদিনের ন্যায় মঙ্গলবার সকাল ৬ টার দিকে সাগর আরবী পড়ার জন্য ওই কোচিং সেন্টারে যায়। প্রতিদিন একঘন্টা করে পড়ানোর কথা থাকলেও সাগরকে গত কয়েকদিন ধরে দেড় ঘন্টা পর ছুটি দেয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল ৮টায় সাগর বাড়িতে ফিরে কান্না করতে করতে আসে। এ সময় কি হয়েছে জানতে চাইলে সাগর ওই শিক্ষকের কু-কর্মের কথা আমাকে সবকিছু খুলে বলে। এর আগেও আরও দুইদিন লম্পট শিক্ষক নাইম তার ছেলের সাথে এ কাজ করেন বলে জানান তিনি।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (আস আই) মোঃ জামাল হোসেন জানান, শিশু বলাৎকারের অভিযোগে নাইম নামে এক লম্পট আরবী শিক্ষক গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৮টায় এলাকাবাসি ও শিশুটির পরিবার বিষয়টি জানালে ঘটনাস্থল থেকে লম্পট আরবী শিক্ষক নাইমকে গ্রেফতার করা হয়। তার একটি আরবী পড়ানোর কোচিং সেন্টার ছিল স্থানীয় এলাকায়।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মীর শাহিন শাহ পারভেজ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ছাত্রকে বলাৎকারের দায়ে লম্পট আরবী শিক্ষক নাইমের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর তাকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here