নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: রমজান মাসে দ্রব্যমূল্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখতে এবং ভেজাল খাদ্য বিক্রি রোধে নিয়মিত জেলা প্রশাসনের সমন্বয়ে গঠিত টিমের বাজার মনিটরিংয়ের কথা থাকলেও সেই কার্যক্রমে যেন হঠাৎ ভাটা পড়ে গেছে। আর সেই সুযোগে এখন ‘পোয়াবারো’ ব্যবসায়ীরা।
দোকানে বিক্রিত সকল দ্রব্যের মূল্য তালিকা সাঁটিয়ে রাখা ও দৈনন্দিন বাজার দর পরিবর্তনের নিয়ম থাকলেও ব্যবসায়ীরা এর কোনটাই মানছে না। উল্টো ভোক্তাদের কাছ থেকে ইচ্ছেমত নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম আদায় করে নিচ্ছেন বিক্রেতারা বলে অভিযোগ করেন সাধারন ক্রেতারা।

শহরের দ্বিগুবাবুর বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য কিনতে আসা বেশ কয়েকজন চাকুরীজীবি ক্রেতা এই প্রতিবেদকের কাছে অনেকটাই আক্ষেপের সুরে বলেন, ‘ভাই মন্ত্রী কন আর ডিসি, সবাই মুখে মুখে ব্যবসায়ীদের অনেক হুংকার দিয়ে থাকেন। কিন্তু বাস্তবে খালি কলস। আর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরই বলেন অথবা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ সংগঠন, যাই থাকুক না কেন, সাধারন মানুষের পক্ষে গণমাধ্যমে বলার সময় মুখে ফেনা তুলে ফেললেও প্রকৃতপক্ষে তাদেরও বাজারে দেখা যায় না। তাই আমরা দু’চার দোকান ঘুরে যেখানে একটু কম পাই সেখান থেকেই পণ্য কিনে নিচ্ছি।’

জানাগেছে, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের জন্য জেলার অন্যতম বৃহৎ পাইকারী বাজার নিতাইগঞ্জে মাত্র একদিন ৩য় রমজানে ক্ষনিকের মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছিল জেলা প্রশাসনের বাজার মনিটরিং কমিটি। সেদিন মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই বিক্রির অপরাধে সেখানকার দুই প্রভাবশালী ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছিল আদালত। এরপর স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মধ্যে এক ধরনের আতংক বিরাজ করতে থাকে। জরিমানার ভয়ে প্রত্যেক ব্যবসায়ী তাদের দোকানে সাঁটানো মূল্য তালিকা গুলো তাৎক্ষনিক পরিবর্তন করে ফেলে।
কিন্তু ভাগ্যক্রমে সেদিন বৃষ্টি নেমে যাওয়ায় দু’টি দোকানের বেশী কোথাও আর ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করতে পারেনি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) ছরোয়ার হোসেনের নেৃতত্বে বাজার মনিটরিং কমিটি।

এছাড়া নগরীর হোটেল রেঁস্তোরা গুলোতে মানসম্মত পরিবেশে ইফতার সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে কিনা তা দেখভালের জন্যও কোথাও ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হতে দেখেনি বলে অভিযোগ করেন সাধারন ক্রেতারা।

এ প্রসঙ্গে বাজার মনিটরিংয়ের দায়িত্বে থাকা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো: জাহাঙ্গীর আলম নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, দু’একদিন পর পর হলেও বাজার মনিটরিং কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। দু’দিন পূর্বেই এক সেমাই কারখানায় অভিযান চালিয়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়াও আরো একাধিক স্থানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়েছে। যা কিনা ঈদের আগ মূহুর্ত পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here