প্রেস বিজ্ঞপ্তি: দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে ১০৮ পরম হংস শ্রী শ্রীমৎ স্বামী গিরিজানন্দ গিরি (বালক বাবা) মহারাজের স্মরণ উৎসব পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে শনিবার সকালে দেওভোগ (জিউসপুকুর পাড়) শ্রী শ্রী গৌর নিতাই জিউর আখড়া থেকে একটি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে পুনরায় আখড়ায় গিয়ে শেষ হয়।

এর আগে ভারত থেকে আগত শ্রীমৎ স্বামী গিরিজানন্দ গিরি (বালক বাবা)’র অনুসারী কিরন গিরি (দেবী মা) মঙ্গল দ্বীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্যদিয়ে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের শুভ সুচনা করেন।

শ্রীমৎ স্বামী গিরিজানন্দ গিরি (বালক বাবা) মহারাজের স্মরন উৎসব উপলক্ষে বাংলাদেশ বেদান্ত মিলন আশ্রম না’গঞ্জ-এর আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বালক বাবার জন্মস্থান থেকে আগত জয় শ্রী মনোরঞ্জন, লিটন ভাওয়াল, ভজন মন্ডল, রতন সরকার, সাধন মন্ডল, পলাশ বীর বাসু, শ্যামল রাজকুমার, কৃষ্ণ, এড. রাজীব মন্ডল, অপু সরকার, বিশ্বজিৎ পাল, চট্টগ্রাম থেকে আগত রাজীব দাস, কুমিল্লা থেকে আগত শ্যামল, সুনীল, আশীষ, অসিত, বিপদ, তনয় শচীন, কিশোর, রাজব।

শ্রীমৎ স্বামী গিরিজানন্দ গিরি (বালক বাবা) মহারাজের স্মরন উৎসব উপলক্ষে অনুষ্ঠানগুলো হল, ভোর ৫টায় মঙ্গল ঘট স্থাপন, সকাল ৬টায় ব্রহ্মমুহতে উপাসনা, সকাল ৯টায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, সকাল ১১টায় দীক্ষাদান, সাধিকা কিরনগিরি (দেবী মা) খোয়াই, ত্রিপুরা, ভারত, দুপুর ১২টায় গুরুপূজা, ঠাকুরের ভোগ রাগ ও ভোগ আরতি, দুপুর ২টায় মহা প্রসাদ বিতরণ, বিকাল ৪টায় মহতী ধর্মসভা, সন্ধ্যায় ৬টায় ব্রহ্মগিতীকা মাঠ, সন্ধ্যা ৭টায় এবং সর্বশেষ ভজন সংগীত।

সংগীত অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন, বাংলাদেশ বেতার নিয়মিত উদীয়মান তরুন শিল্পী পরীক্ষিত বনিক (ঈমন), শেপাল মুজমদার, পলাশ মজুমদার, রিপন ও রিংকু সহ আরো অনেক সংগীত শিল্পী।

সংগীত শেষে তারক ব্রহ্ম মহানাথ “ জয়গুরু সত্য জয় গুরু জয়” শান্তির বানীর মাধ্যমে এ উৎসবের সমাপ্তি ঘটে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here