নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নগরীর ক্ষুদ্র ফুটপাত হকার ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া বলেছেন, ফুটপাতে ব্যবসা করা হকাররাও মানুষ। তাই আপনাদের বিষয়টিও আমাদেরকে চিন্তা ভাবনা করতে হবে।
বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পুনর্বাসনের পূর্বে উচ্ছেদের প্রতিবাদ জানিয়ে জেলা প্রশাসকের নিকট নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদ কর্তৃক স্মারকলিপি প্রদান কালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, এসব ক্ষুদ্র ও মাঝারি মানের ফুটপাত ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ প্রক্রিয়ার বিষয়ে আমরা বসে এ বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত গ্রহন করবো। তাদের দিকটাও আমাদের বিবেচনা করতে হবে। পরে ফুটপাতের হকাররা জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়ার কথায় আশ^স্ত হয়ে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আরো একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।

এর আগে সকাল ১০টায় শহরের মর্ডান ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের সামনে নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের বরাবরে একটি লিখিত স্মারকলিপি প্রদানের জন্য জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় অভিমুখে যাত্রা করেন নগরীর সর্বস্তরের সাধারন ফুটপাত হকাররা।


লিখিত স্মারকলিপিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দ উল্লেখ করেন, নারায়ণগঞ্জ নগরীতে চার হাজারেরও অধিক ফুটপাত ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন যাবৎ ব্যবসা পরিচালনা করে তাদের জীবন যাপন করছেন। এই চার হাজার ফুটপাত ব্যবসায়ীদের পরিবার পরিজন ধরলে তাদের জনসংখ্যা হবে পনের হাজারেরও অধিক। জনসাধারনরে চলাচলে যাতে বিঘœ না ঘটে সে কথা বিবেচনায় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে প্রতিদিন বিকাল ৫টার পর এবং সরকারি ছুটির দিনেও একই নিয়মে তারা দোকান বসায়।

তারা আরো উল্লেখ করেন, তাদের কারনে রাস্তায় কোন যানজট হয় না। বরং অবৈধ পরিবহন ষ্ট্যান্ড, রাস্তায় গাড়ি পার্কিং করা এবং অধিক পরিমানে প্রাইভেট কার রাখার কারনে শহরের রাস্তায় যানজট হচ্ছে। দরিদ্র সাধারন ক্রেতারা তাদের কাছ থেকে স্বল্পমূল্যে মালামাল ক্রয় করতে পারছেন। সে ক্ষেত্রে ক্রয় এবং বিক্রয়ের দিক দিয়ে তারা দেশের দারিদ্র জনগোষ্ঠির প্রয়োজন মিটিয়ে থাকেন। গত কয়েকদিন যাবত পুলিশ কর্তৃক তাদের ব্যবসা সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়ায় তারা পরিবার পরিজন নিয়ে হতাশায় এবং অনিশ্চিতভাবে জীবন যাপন করছেন। কোন প্রকার পূর্ণবাসন ছাড়া ফুটপাত থেকে তাদের দোকানপাট উচ্ছেদ কার্যক্রম প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান এবং বেঁচে থাকার অধিকার নিশ্চিত করারও দাবি জানান তারা।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ হকার্স সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব সেকান্দার হায়াত, নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি রহিম মুন্সী, সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, যুগ্ম সম্পাদক পলাশ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here