নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: দীর্ঘ ৫ বছর পরে ২০১৮ সালের ৫ জুন ঘোষনা করা হয়েছিলো নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের আংশিক কমিটি। এর মধ্যে মহানগর ছত্রিদল ২৩৫ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি পেলেও জেলা ছাত্রদল আটকে আছে ১২ সদস্যের সেই আংশিক কমিটিতেই। দেখতে দেখতে এই কমিটির মেয়দ ২ বছর পূর্ণ হয়েছে শুক্রবার ৫ জুন। এ দুই বছরে জেলা ও মহানগর ছাত্রদল নিজরা সংগঠিত হওয়ার পরিবর্তে একাধীক দল উপদলে বিভক্ত হয়ে জন্ম দিয়েছে আভ্যন্তরিন কোন্দলের। দলের চেয়ে ব্যক্তির পেছনে সময় নষ্ট করেছে ছাত্রদলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা ফলে বঞ্চিত হয়েছে ত্যাগী নেতাকর্মীরা। বিশেস করে জেলা ও মহানগর ছাত্রদলে সভাপতির সাথে সেক্রেটারীর দ্বন্দ সাংগঠনিক কর্মকান্ডের গতিকে করেছে মন্থর ও অনেকখানি প্রশ্নবিদ্ধ। জাতীয় ও দলীয় কর্মসূচিগুলোতে দুইজনকে একসাথে উপস্থিত থাকতে দেখা গেছে খুব কম সংখ্যক সময়েই। ফলে নেতাদের এই বিভক্তি ছড়িয়ে পরেছে কর্মী পর্যায়েও।

জানা যায়, ২০১৮ সালের ৫ জুন ঘোষনা করা হয় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের আংশিক কমিটি। মশিউর রহমান রনিকে সভাপতি ও খায়রুল ইসলাম সজীবকে সাধারণ সম্পাদক করে ১২ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি এবং শাহেদ আহমেদকে সভাপতি ও মমিনুর রহমান বাবুকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট মহানগর কমিটির অনুমোদন দেন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক আকরাম উল হাসান মিন্টু।
মশিউর রহমান রনিকে সভাপতি করে ঘোষিত ১২ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, সিনিয়র সহ সভাপতি: মোহাম্মদ উল্লাহ, সহ সভাপতি: আরিফুর রহমান মানিক, সাধারণ সম্পাদক: খায়রুল ইসলাম সজিব, যুগ্ম সম্পাদক: ইসমাইল মামুন, মেহেদী হাসান,মাইনুল ইসলাম রবিন, নাজমুল হাসান বাবু,মশিউর রহমান শান্ত, রাকিব হাসান রাজ, রফিকুল ইসলাম রফিক, ও সাংগঠনিক সম্পাদক: সোহেল মিয়া।

অপরদিকে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট মহানগর কমিটির মধ্যে সভাপতি হিসেবে শাহেদ আহমেদ, সিনিয়র সহ সভাপতি: রাফিউদ্দীন রিয়াদ, সহ সভাপতি শাকিল মিয়া, নাজিম পারভেজ অনতু, শফিকুল ইসলাম শফিক, আলতাফ হোসেন ইব্রাহীম, সিরাজ উদ্দিন প্রধান দর্পন, হামিদুর রহমান সুমন, সাধারণ সম্পাদক: মমিনুর রহমান বাবু, যুগ্ম সম্পাদক: আলামিন প্রধান, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন লিংরাজ খান, রাকিবুর রহমান সাগর, সাজ্জাদ হোসেন, ইব্রাহীম বাবু, ও মারুফুল ইসলাম পাপানকে কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

একই বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জ মহানগগর ছাত্রদলের ২৩৫ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। সর্বশেষ মাসুকুল ইসলাম রাজিবকে আহ্বায়ক করে ২০১৩ সালের ১৬ মার্চ গঠিত হয়েছিল নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি। তাছাড়াও একই সময়ে মনিরুল ইসলাম সজলকে আহ্বায়ক করে মহানগর ছাত্রদল কমিটি ঘোষিত হয়।

ছাত্রদলকে বলা হয়ে থাকে বিএনপির ভ্যানগার্ড। তাই দীর্ঘদিন পরে কমিটি ঘোষনা হওয়ায় নারায়ণগঞ্জ ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা আশার আলো দেখতে পেয়েছিলেন। ভেবেছিলেন নতুন কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্তরা সাংগঠনিকভাবে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন কিন্তু তাদের সে আশায় গুড়ে বালি। কমিটি ঘোষনার পর থেকেই বিভিন্ন ভাইয়ের অনুসারী হয়ে বিভক্ত হয়ে পরেন দায়িত্বশীলরা ফলে কর্মীরাও হয়ে যায় দিকবিদিকশূণ্য। এর পরিনাম দুই বছরেও জেলা কমিটি পায়নি পূর্ণাঙ্গ রূপ আর ২৩৫ সদস্যের জাম্বু কমিটির সবাইকে একদিনের জন্যেও এক করতে পারেনি মহানগর। দুই বছরে তাদের অর্জণ শুধু কোন্দল আর বিভক্তি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here