নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: রাজধানীর ওয়ারী ও সবুজবাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে নব্য জেএমবির পলাতক ২ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে নারায়ণগঞ্জের র‌্যাব ১১’র সদস্যরা।

গ্রেপ্তাকৃতররা হলো, কিশোরগঞ্জ জেলার মো: গিয়াস উদ্দিন (৩৪) ও নরসিংদী জেলার মোঃ লিটন (৩৪)। তাদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ও বন্দর থানায় প্রথক দুটি মামলা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) বিকেলে গনমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করে র‌্যাব-১১।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি উল্লেখ করা হয়েছে, র‌্যাব-১১ কর্তৃক ইতিপূর্বে দায়েরকৃত মামলা সমূহের এজাহার নামীয় পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের জন্য গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধির পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে ক্রমাগত অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল গত শনিবার (১৮ অক্টোবর) দিবাগত রাত থেকে রৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) বেলা ১১ পর্যন্ত রাজধানীতে দুইটি পৃথক অভিযান পরিচালনা করে সবুজবাগ এলাকা রুপগঞ্জ থানার মামলা নং-২৭ তারিখ ১১ জুন ২০১৭ এর পলাতক আসামী গিয়াস উদ্দিন ও ওয়ারী এলাকা হতে বন্দর থানার মামলা নং-৬৯ তারিখ ২২ আগষ্ট ২০১৭ এর পলাতক আসামী লিটনকে গ্রেপ্তার করে।

এদের মধ্যে গিয়াস উদ্দিন ২০০০ সাল থেকে ঢাকা শহরের বিভিন্ন স্থানে রিক্সা চালায় এবং বার্বুচির কাজ করে। ২০১২ সালের মাঝামাঝি সে জসিম উদ্দিন রাহমানির বাবুর্চি হিসেবে কাজ শুরু করে। এ সময় সে জসিম উদ্দিন রাহমানির উগ্রবাদী বক্তব্য শোনার মধ্য দিয়ে জঙ্গিবাদে উদ্ধুদ্ধ হয়। পরবর্তীতে জসিম উদ্দিন রাহমানি গ্রেপ্তার হওয়ার পর কিছু দিন আত্মগোপনে থেকে ২০১৫ সাল থেকে ঢাকার নন্দী পাড়াস্থ কোরআন সুন্নাহ একাডেমী মসজিদে যাতায়াত শুরু করে এবং উক্ত মসজিদের ইমাম ও খতিব শায়েখ আরিফ হোসেন এর সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরী করে। পরে আরিফ হোসেনের মাধ্যমে সে জেএমবির দাওয়াত প্রাপ্ত হয়ে জেএমবিতে (সারোয়ার-তামীম গ্রুপ) যোগদান করে এবং দাওয়াতী কাজ শুরু করে।

অপরদিকে, লিটন ২০০৫ সালে ঢাকায় এসে প্রথমে নাইট গার্ড এবং পরবর্তীতে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করে। সে ২০১২ সালে জসিম উদ্দিন রাহমানির মসজিদে যাতায়াত শুরু করে এবং জঙ্গীবাদে উদ্বুদ্ধ হয়। ২০১৩ সালে জনৈক মুনতাসির এর সাথে তার আত্মীয়তার সম্পর্ক তৈরী হয়। পরে ২০১৫ সালে মুনতাসির এর মাধ্যমে জেএমবির দাওয়াত প্রাপ্ত হয়ে জেএমবিতে (সারোয়ার-তামীম গ্রুপ) যোগদান করে দাওয়াতী কাজ শুরু করে। সে ছদ্মবেশ ধারন করতঃ ঘন ঘন পেশা ও বাসস্থান পরিবর্তন করে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় জেএমবির দাওয়াতী কাজ করে আসছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here