নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: যথাযথ ধর্মীয় ভাবগম্ভীর পরিবেশ ও আনন্দ আয়োজনের মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জে পালিত হয়েছে খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎসব পবিত্র ইস্টার সানডে।
রবিবার (১ এপ্রিল) দিনটি উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জের ক্যাথলিক ও ব্যাপ্টিষ্ট চার্চে বিশেষ প্রার্থণা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শহরের বিবি রোডে অবস্থিত সাধু পৌলের গির্জায় সকাল নয়টায় প্রার্থণার মধ্য দিয়ে উৎসবের সূচনা হয়। প্রার্থনা পরিচালনা করেন ফাদার অগাষ্টিন অমল ডি রোজারিও। উপস্থিত ছিলেন গির্জার সেক্রেটারী পিন্টু পলিক্যাপ পিউরিফিকেশনসহ বিপুল সংখ্যক ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের অনুসারী।

প্রার্থণা শেষে সাধু পৌলের গীর্জার সেক্রটারী পিন্টু পলিক্যাপ পিউরিফিকেশন বলেন, আমাদের খ্রীষ্টান ধর্মের ধর্ম গুরু যিশু খ্রীষ্ট এই দিনে দ্বিতীয়বার জীবন লাভ করে মর্ত্যে মানুষের সেবায় নিয়োজিত হন। তাই আমরা এ দিনটিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে পালন করে থাকি। প্রতিবারের মতো এবারেও ইস্টার সানডে উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জের খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের লোকেরা আনন্দ উল্লাসের মাধ্যমে দিনটি পালন করছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির শহর নারায়ণগঞ্জে সকল ধর্মের সহ অবস্থানের কারনে এসব উৎসবগুলি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলেই উদযাপণ করে থাকে। সবাইকে পবিত্র ইস্টার সানডের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।


একই সময়ে কালীরবাজারস্থ ব্যাপ্টিষ্ট গীর্জায় প্রার্থনা পরিচালনা করেন ফাদার পাস্তর শশাংক বাগচি। উপস্থিত ছিলেন, ফাদার সৌরভ দেউরি, ফাদার সদানন্দ, চার্লস সৌমিত্র দেউরীসহ ব্যাপ্টিষ্ট ধারার অনুসারীরা।

প্রার্থনার পাশাপাশি চলে ধর্মীয় সংগীত পরিবেশনা, প্রসাদ বিতরণ ও আলোচনা সভা। আলোচনা সভায় পবিত্র ইস্টার সানডে’র গুরুত্ব ও মানব জীবনে তার প্রয়োগ সম্পর্কে গুরুগম্ভীর দিক নির্দেশনামূলক আলোচনা করা হয়। খ্রীষ্টান ধর্মের আদি পিতা যিশু খ্রীষ্টের এ ধরায় দ্বিতীয়বার আগমনের এই দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে নানা আয়োজনে দিনটিকে উদযাপন করে থাকে খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের সকলে। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না।

উল্লেখ্য, যিশু খ্রীষ্ট তিনদিন মৃত থাকার পর বছরের এই দিনে পুনরায় জীবন ফিরে পান। সেই থেকে খ্রীষ্টান ধর্মের অনুসারীরা দিনটিকে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করে থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here