নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দীতাকারী প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দের মধ্য দিয়েই নারায়ণগঞ্জের সংসদীয় ৫টি আসনে শুরু হয়ে গেছে ভোটের মাঠে নৌকা, লাঙ্গল আর ধানের শীষের মূল লড়াই।
সোমবার (১০ ডিসেম্বর) সকালে জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়ার কাছ থেকে নির্বাচনী প্রতীক বুঝে পাওয়ার পরই ভোটের মাঠে আনুষ্ঠানিক ভাবে নেমে পড়েন এমপি প্রার্থীরা।

তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, সংসদ নির্বাচনে সাধারন ভোটারদের কাছে দেশের প্রধান বৃহৎ তিনটি রাজনৈতিক দল আওয়ামীলীগের প্রতীক নৌকা, বিএনপির ধানের শীষ এবং জাতীয় পার্টির প্রতীক লাঙ্গল বিশেষ ভাবে প্রাধান্য পেলেও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জের সংসদীয় আসনগুলোতে ভোট যুদ্ধে নেমে পড়েছেন ইসলামী আন্দোলন, খেলাফত মজসিল, সিপিবি, বাসদ, জাকের পার্টি, গণতান্ত্রিক বাম মোর্চাসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলসহ স্বতন্ত্র প্রার্থীরাও।

জানাগেছে, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগসহ ১৪ দলের সাথে মহাজোট গঠন করে নির্বাচনে অংশ নিয়েছে জাতীয় পার্টি।

ফলে নারায়ণগঞ্জের দু’টি আসন (নারায়ণগঞ্জ-৫ ও ৩) আসনটি মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টিকে ছাড় দিয়ে বাকী ৩টি আসনে (নারায়ণগঞ্জ-১, ২ ও ৪) নৌকার একক প্রার্থী দিয়েছে আওয়ামীলীগ। কিন্তু তারপরেও নারায়ণগঞ্জের আরো দু’টি আসনে (নারায়ণগঞ্জ-৪ ও ১) নৌকার প্রার্থী থাকা স্বত্তেও লাঙ্গলের উন্মুক্ত প্রার্থী দিয়েছে জাতীয় পার্টি।

আর বিএনপিসহ ২৩ দলীয় জোটের সমন্বয়ে গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষের মনোনয়ন পেয়েছেন ৫ জন। যার মধ্যে, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে ঐক্যফ্রন্টের শরিক নাগরিক ঐক্য ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে জমিয়তে উলামায়ে দলকে আসন ছাড় দিয়ে বাকী তিনটি আসন (নারায়ণগঞ্জ-১, ২ ও ৩) আসনে দলীয় প্রার্থী দিয়েছে বিএনপি।

তবে মহাজোটের আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা স্ব-স্ব দলীয় প্রতীকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দীতা করলেও তাদের প্রধান প্রতিদ্বন্দী জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সকল প্রার্থীই প্রতিদ্বন্দীতা করছেন ধানের শীষ প্রতীকে।

আর সোমবার প্রতীক পাওয়ার পরেই ভোট যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক প্রচারনায় নেমে পড়েন ৫টি আসনের এমপি প্রার্থীরা।

যার মধ্যে, নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ এ কে এম সেলিম ওসমান (লাঙ্গল), জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী নাগরিক ঐক্যের উপদেষ্টা এস এম আকরাম (ধানের শীষ), ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সৈয়দ বাহাদুর শাহ মুজাদ্দেদী (চেয়ার), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হাজী মো. আবুল কালাম (হাত পাখা), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল প্রার্থী আবু নাঈম খান বিপ্লব (মই), খেলাফত মজলিসের প্রার্থী হাফেজ মো. কবির হোসেন (দেয়াল ঘড়ি), সিপিবির প্রার্থী এড. মন্টু ঘোষ (কাস্তে), জাকের পার্টির মোর্শেদ হাসান (গোলাপ ফুল) প্রতীক পেয়েই মাঠে নেমে পড়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে মহানগর আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ¦ এ কে এম শামীম ওসমান নৌকা), জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী জেলা জমিয়তে উলামায়ে সভাপতি মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির উন্মুক্ত প্রার্থী হিসেবে দলটির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন খোকা মোল্লা (লাঙ্গল), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের প্রার্থী সেলিম মাহমুদ (মই), বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী মাহমুদ হোসেন (কোদাল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম (হাত পাখা), সিপিবির প্রার্থী ইকবাল হোসেন (কাস্তে), বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির প্রার্থী মো. ওয়াজি উল্লাহ মাতব্বর অজু (কুঁড়েঘর) ও বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের প্রার্থী হিসেবে মো. জসীম উদ্দিন (বট গাছ) দলীয় প্রতীক নিয়ে গণসংযোগে নেমে পড়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব আলহাজ¦ লিয়াকত হোসেন খোকা (লাঙ্গল), জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সোনারগাঁ উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আলহাজ¦ আজহারুল ইসলাম মান্নান (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত (সিংহ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মাওলানা মো. ছানাউল্লাহ নূরী (হাত পাখা), সিপিবির প্রার্থী আব্দুস সালাম বাবুল (কাস্তে), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল প্রার্থী জেএসডির এ এন এম ফখর উদ্দিন ইব্রাহীম (পদ্মফুল), বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের প্রার্থী মো. মজিবুর রহমান (ফুলের মালা) ও জাকের পার্টির প্রার্থী মো. মুরাদ হোসেন জামাল (গোলাপ ফুল) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারনায় নেমে পড়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম বাবু নৌকা), জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ (ধানের শীষ), সিপিবির প্রার্থী কমরেড হাফিজুল ইসলাম (কাস্তে) এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী নাসির উদ্দিন (হাত পাখা) প্রতীকে গণসংযোগে নেমে পড়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক নৌকা), জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির উন্মুক্ত প্রার্থী হিসেবে দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. আজম খান (লাঙ্গল), সিপিবির প্রার্থী মো. মনিরুজ্জামান চন্দন (কাস্তে), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. ইমাদুল্লাহ (হাত পাখা), জাকের পার্টির প্রার্থী মাহফুজুর রহমান (গোলাপ ফুল) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মো. হাবিবুর রহমান (সিংহ) নিয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থণা শুরু করে দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here