নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে তরুণ ভোটারদের কাছে টানছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দলের সদস্য সংগ্রহ অভিযানে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে প্রথবারের মতো ভোটার হওয়া এ রকম তরুণদের। দলটির নেতারা বলেছেন, এবারের অভিযানে তাদের মূল লক্ষ্য নতুন ভোটার এবং নারী ভোটারদের দলের সদস্যপদ দেওয়া।
এরই মধ্যে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের সভাপতি আঃহাই এ বিষয়ে সদস্য সংগ্রহ অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া নেতৃবৃন্দকে কঠোরভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন বলে দলীয় সূত্র নিশ্চিত করেছেন। তরুন ও নতুন ভোটারদের টার্গেট করে সদস্য সংগ্রহ অভিযান পরিচালনা করছে দায়িত্বরত নেতৃবৃন্দ। জেলার বিভিন্নস্থানে সদস্য সংগ্রহ ফরম অনুষ্ঠানে টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থেকে তরুণদের জন্য আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার কী কী করেছে, সেসব তাদের সামনে তুলে ধরা হচ্ছে। প্রতিশ্রুতি থাকছে আগামীতে তরুণ প্রজন্মের কর্মসংস্থান সৃষ্টির।

তরুণ সমাজের জন্য নানামুখী করণীয় পদক্ষেপগুলো তুলে ধরার মাধ্যমে আওয়ামীলীগে যোগদান করার ব্যাপারে আকৃষ্ট করে তুলার চেষ্টায় রয়েছে। নবম সংসদের আগে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, এবার নির্বাচনী ইশতেহারে তরুণদের জন্য আলাদা চমক রাখবে ক্ষমতাসীন দলটি এমনটাই বুঝানো হরচ্ছে। দলটির নীতিনির্ধারকরা জানিয়েছেন, তরুণদের কাছে টানতে পারলেই আগামীতে আবারও ক্ষমতায় আসবে আওয়ামী লীগ।

দলীয় সূত্রমতে, নবম জাতীয় সাংসদ নির্বাচনের পর পরই শেখ হাসিনার সরকার দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পাওয়ার পর পরই ডিজিটালের ছোয়ায় নারায়ণগঞ্জের তরুন সমাজ অনেকটা এগিয়ে রয়েছে। এছাড়া নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি আসনের এমপিদ্ধয় দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকে জেলাব্যাপী ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। সে সাথে তরুনদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দিয়েছেন। ডিজিটাল প্রযুক্তির সংস্পর্শে তরুন প্রজন্ম আমার পর নারায়ণগঞ্জের তরুন সমাজ অনেকটাই এগিয়ে গেছে। আর নারায়ণগঞ্জের অন্যান্য সাংসদের চেয়ে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একে এম শামীম ওসমান তার নির্বাচনী এলাকার তরুন যুব সমাজের উন্নয়নের লক্ষ্যে ব্যাপক পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। এমনকি তরুনদের সাথে তাল মিলিয়ে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নের ক্ষেত্রে অনেকটা এগিয়ে রয়েছে।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আঃ হাই বলেন, নারায়ণগঞ্জের ভোটারদের মধ্য অর্ধেক হচ্ছে নারী, তাই সদস্য সংগ্রহের গুরুত্বপূর্ণ টার্গেট হচ্ছেন তারা। আর দ্বিতীয় টার্গেট হচেছ নতুন ভোটাররা। তিনি বলেন, নতুনদের দলের সদস্য করতে হবে। অফিসে বসে সদস্য ফরম পূরণ বা কাউকে সদস্য করা যাবে না। ঘরে ঘরে গিয়ে মানুষকে আওয়ামী লীগের সদস্য করতে হবে। কোনো চিহ্নিত সন্ত্রাসী, স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি, চিহ্নিত চাঁদাবাজ আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না।

তিনি আরো বলেন, জেলা-উপজেলায় যেসব সদস্য সংগ্রহ চলছে, সেখানে যারা প্রথমবারের মতো ভোটার হয়েছেন তাদের গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কারণ তরুণরাই আগামীর কা-ারি। ’

জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল বলছেন, আগামীতেও তরুণদের হাত ধরে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে চায়। সে কারণে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের চলমান সদস্য সংগ্রহ অভিযানে তরুণদের বিশেষ করে প্রথমবারের ভোটার ও নারীদের গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল আলী বলেন, ‘২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দলের নীতি নির্ধারকরা ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণা করেন। তরুণসমাজ তা গ্রহণ করে আমাদের ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে। নির্বাচনী ইসতেহারের শর্ত অনুয়ারী আমরা এখন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলেছি। নারায়ণগঞ্জের প্রানের নেতা একে এম শামীম ওসমানের নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জে ব্যাপক উন্নয়নের মাধ্যমে সাংসদপুত্র অয়ন ওসমানের সুদূরী চিন্তা ভাবনায় ডিজিটালের ছোয়ায় তরুন প্রজন্ম অনেকটাই এগিয়ে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন বাস্তবতা। এর সুফল দেশের প্রতিটি জেলার মানুষের মতো নারায়ণগঞ্জের সব শ্রেনীর তরুন যুব সমাজ থেকে শুরু করে সব শ্রেনী পেশার মানুষ পাচ্ছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাছিনার নেতৃত্বে তরুণ প্রজন্মের জন্য নতুন চমক অপেক্ষা করছে বলেও তিনি মনে করেন। কারণ তরুণরাই দেশের ভবিষ্যৎ। তারা যেদিকে যাবে, গণরায় সেদিকেই প্রভাব ফেলবে। আমরা আশা করব, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকারের টানা উন্নয়নে দেশের তরুণসমাজ আবারও নৌকায় আস্থা রাখবে। জেলা আওয়ামীলীগের পূনাঙ্গ কমিটি ঘোষনার পর পরই পূর্বের তুলনায় দলের নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান গতি পেয়েছে বলেও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here