নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বিচারাধীন জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা সকল ঢাকার রাজপথে অবস্থানের সিদ্ধান্ত নিলেও নারায়ণগঞ্জের রাজপথে অবস্থান করবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ।
উভয় দলের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে আলাপকালে এমনটাই জানাগেছে। রীতিমত এই দিনটিকে ঘিরে রাজনীতির মাঠে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।

ইতিমধ্যেই নাশকতার অভিযোগে জেলার বিভিন্ন থানায় পুলিশের দায়েরকৃত মামলায় শীর্ষস্থানীয় অনেক নেতৃবৃন্দ গ্রেফতার হলেও মামলার আসামী হয়ে বেশীরভাগই রয়েছেন আত্মগোপনে। যারা আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী সকল প্রতিকূলতা পেরিয়ে ঢাকার রাজপথে শান্তিপূর্ণ ভাবে অবস্থানের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ বলেন, ‘সরকার মিথ্যা মামলা দিয়ে নেতাকর্মীদের ঢাকায় অবস্থান করা থেকে কখনোই বিরত রাখতে পারবেনা। আমরা যেকোন কিছুর বিনিময়ে নেতাকর্মীদের নিয়ে নেত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ৮ ফেব্রুয়ারী ঢাকার রাজপথে শান্তিপূর্ণ অবস্থান করবো।’

মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপার্সনের প্রতি আমাদের আস্থা জানাতে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে ঢাকার রাজপথে দলীয় নেতাকর্মীদের অবস্থানের নির্দেশনা দিয়েছি। পুলিশ আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে রাজপথ থেকে দূরে রাখার যে অপপ্রয়াস চালাচ্ছে তা কোনক্রমেই সফল হবে না। দেশনেত্রীর বিরুদ্ধে অন্যায় অবিচারের প্রতিবাদ জানাতে গ্রেফতার ভয় উপেক্ষা করেই সকলে রাজপথে অবস্থান করবে।’

মহানগর যুবদল আহ্বায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ জানান, ‘আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী মহানগর যুবদলের নেতাকর্মীরা ঢাকার রাজপথে সবার আগে থাকবে। মিথ্যা মামলা দিয়ে কখনোই আমাদের দমানো যাবে না।’

তবে এদিন বিএনপির নেতাকর্মীরা ঢাকার রাজপথে অবস্থান করলেও রায় ঘোষণার তারা নারায়ণগঞ্জে যেন কোন ধরনের অরাজকতা সৃষ্টি করতে না পারে, সেজন্য জেলার বিভিন্ন সড়ক মহাসড়ক, পাড়ামহল্লায় অবস্থান করার ঘোষণা দিয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।

কিন্তু আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার রায় ঘোষণার দিন যাতে সারাদেশে বিএনপি-জামাত কোনরূপ অরাজকতার সৃষ্টি না করতে পারে তা নিশ্চিত করতে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ দলীয় নেতাকর্মীদের মাঠে থাকা নির্দেশনা না দিলেও ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদেরকে সারাদেশে রাজপথ পাহাড়ায় নিয়োজিত থাকার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিরুদ্ধে ঘোষিতব্য রায়কে ঘিরে কোন ধরনের নাশকতা যেন না হয়, সেজন্য নারায়ণগঞ্জের রাজপথে নিজে উপস্থিত থাকার পাশাপাশি দলীয় নেতাকর্মীদেরও উপস্থিত থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের আওয়ামীলীগের সাংসদ আলহাজ¦ এ কে এম শামীম ওসমান।

এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের আওয়ামীলীগের সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতিক ও নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনের সাংসদ আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম বাবু স্থানীয় নেতাকর্মীদের ঐদিন মাঠে থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানাযায়।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপু বলেন, ‘খালেদা জিয়ার রায়ের দিন বিএনপি জামাতের দোসররা যেন বঙ্গবন্ধুর এই সোনার বাংলার কোন ক্ষতি সাধন করতে না পারে, সেজন্য দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে আমরা সেদিন মদনপুর অবস্থান করবো।’

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন, সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা ইতিমধ্যেই দলীয় নেতাকর্মীদের বিভিন্ন পাড়ামহল্লায় অবস্থানের নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান।

আর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শেখ সাফায়েত আলম সানি জানান, ‘দলীয় চেয়ারপার্সনের বিরুদ্ধে ঘোষিত রায়কে কেন্দ্র করে বিএনপির নেতাকর্মীরা যেন কোন ধরনের ধংসাত্মক কর্মকান্ড করতে না পারে, সেজন্য ছাত্ররীগের নেতাকর্মীদের শান্তিপূর্ণ ভাবে মাঠে অবস্থানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here