নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: প্রকাশিত হয়েছে ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ী পরীক্ষার ফলাফল।
শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) সকালে গণভবনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন।

এরপর দুপুরে নারায়ণগঞ্জের স্কুল ও মাদ্রাসায় ফলাফল প্রকাশ করা হয়।

এবছর নারায়ণগঞ্জ জেলায় পিইসি’তে পাশের হার গত বছরের তুলনায় শতকরা ১ ভাগ কম হলেও বেড়েছে জিপিএ ৫ প্রাপ্তির সংখ্যা। পিইসি’তে পাশের হার ৯৮ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

আর গত বছর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে পাসের হার ছিল ৯৯ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

গত বছরের চেয়ে এবার জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ২২৭টি। এবারের ফলাফলে বালকদের তুলনায় বালিকারা ভাল ফল করেছে। জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৪৯০ জন বালক ও ৪১৩৬ জন বালিকা।

অপরদিকে, মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় এবার পাস করেছে ৯৩ দশমিক ৭২ শতাংশ পরীক্ষার্থী। গত বছরের চেয়ে এবার পাসের হার কমেছে। ইবতেদায়ীতে গতবার ৯৬ দশমিক ৭৮ শতাংশ পরীক্ষার্থী পাস করেছিল। এবছর জিপিএ ৫ পেয়েছে ১০৫ জন। গত বছর জিপিএ ৫ পেয়েছিলো ১৪১ জন।

তন্মধ্যে এবছর জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪৮ জন বালক ও ৫৭ জন বালিকা।

১৯ নভেম্বর শুরু হয়ে ২৬ নভেম্বর শেষ হয় পিইসি ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা।

এবছর নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি উপজেলাধীন ১৪৭৫ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রাথমিক সমাপনী ও ইবতেদায়ী পরীক্ষার্থী ছিল ৫৭ হাজার ২শ’ ৩১ জন।

যার মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার্থী ছিল ৫৩ হাজার ৫শ’ ৭ জন। পরীক্ষা কেন্দ্র ছিল ৪৬টি। তন্মধ্যে বালক ছিল ২৪ হাজার ৯শ’ ৫৩ জন ও বালিকা ২৮ হাজার ৫৫৪ জন।

আর ইবতেদায়ী পরীক্ষার্থী ছিল ৩ হাজার ৭শ’ ২৪ জন। পরীক্ষা কেন্দ্র ছিল ৫৫টি। বালক পরীক্ষার্থী ছিল ১ হাজার ৯শ’ ২৪, বালিকা ১ হাজার ৮শ’ জন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here