নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ উপজেলার ইসলাম পুর গ্রামের আমেনা আক্তার (২২) নামের এক গৃহবধূকে যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় পাষন্ড স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা মারধর করে তার পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১ টায় ওই গৃহবধূকে তার দুই বছরের শিশু কন্যাকে কোলে নিয়ে কান্নারত অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গনে তাকে দেখতে পাওয়া যায়। এ ঘটনায় গৃহবধূ আমেনা আক্তার বাদী হয়ে তার স্বামী বশির উদ্দিন সহ ৮জনের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত “খ” অঞ্চলে একটি সিআর মামলা দায়ের করেন।

মামলার বিবরনে জানা যায়,গত ২০১৩ সালের ১৫ই মার্চ মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার বড় বাটেরচর এলাকার জসিম উদ্দিনের ছেলের সাথে সামাজিক ভাবে তার বিয়ে হয়। বিয়ের সময় তার পিতা রফিকুল ইসলাম তিনলক্ষ টাকা দেন মোহর ধার্য্য করে বিবাহ সম্পন্ন করেন। যৌতুক বাবদ তার স্বামী বশির উদ্দিনকে একলক্ষ টাকা নগদ প্রদান করা হয়। এছাড়া ঘড় সাজানো বাদব খাট,সুকেস, লেপতোষক ও স্বর্ণের আংটি দেন এবং ৭৫ হাজার টাকা মেহমানদের খাবারের জন্য খরচ করেন।

পরবর্তীতে বশির উদ্দিনকে বিদেশে যাওয়ার জন্য গত ০১/০১/২০১৪ইং তারিখে দুইলক্ষ টাকা প্রদান করেন। গত ৯/০৪/২০১৭ইং তারিখে বশির উদ্দিন বিদেশে যায় এবং৭ মাস পর দেশে ফিরে আসে। দেশে এসে পূনরায় সে আরও দুই লক্ষ টাকা তার নিকট দাবী করেন। সর্বশেষ গত ০২/০২/২০১৭ইং তারিখে আবারও তার নিকট দুইলক্ষ দাবি করেন তার স্বামী বশির উদ্দিন। টাকা না দেওয়ায় তার স্বামী ও শশুর বাড়ীর লোকজন তাকে চুলের মুঠি ধরে বেধরকভাবে পিটিয়ে মারধর করে তার পিতার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। তার দুই বছরের একটি কণ্য সন্তান রয়েছে। বর্তমানে ওই গৃহবধূ তার পিতার বাড়িতে তার কন্যা সন্তানকে নিয়ে অতি কষ্টে দিন যাপন করছেন। তার পিতা একজন সামান্য দিনমুজুর। তারস্বামী বশির উদ্দিন তাকে মামলা তুলে নিয়ে অনবরত হুমকি দিচ্ছেন। তিনি তার সন্তানকে নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন বলে জানান।

মামলায় অন্যান্য আসামীরা হলেন, নাসির উদ্দিনের স্ত্রী লিজা (২৭), জসিম উদ্দিনের ছেলে নাসির উদ্দিন (৩০), জসিম উদ্দিনের অপর ছেলে সোলেমান, মৃত নাসির উদ্দিনের ছেলে জসিম উদ্দিন, জসিম উদ্দিনের স্ত্রী নাজমা (৫০), মৃত ইনুর ছেলে হালিম (৪০) হালিমের স্ত্রী লাভলী (৩২)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here