নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া বলেছেন, ‘এই নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক হিসেবে কাজ করায় আমি গর্বিত। আমরা এই প্রজন্মের মাধ্যমে উদ্ভাবনী অনেক কিছু করতে পেরেছি। নতুন এই উদ্ভাবকদের আমরা আরো বেশী খুঁজে বের করতে চাই। যারা নুতন উদ্ভাভাবক তাদের সম্পের্কে আমাদের ওয়েব সাইটের মাধ্যমে আপনারা আমাদেরকে অবগত করতে পারেন। একটা সময় ছিল মিডিয়াগুলো ইমপ্রুভ ছিল না। এখন দেশের সব জেলার চেয়ে আমরা অনেক বেশী এগিয়ে আছি।’

সোমবার (২৩অক্টোবর) দুপুর ১২টায় নারায়ণগঞ্জ সার্কিট হাউজ সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন নারায়ণগঞ্জ ও জেলা তথ্য অফিস আয়োজিত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম এর আওতায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে বিভিন্ন ই-সেবা সম্পর্কে জনগনের অংশ গ্রহনকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।


জেলা প্রশাসক আরো বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ জেলার জামদানী শিল্পে আমরা আজ বিশে^ পরিচিত। আমরা চেষ্টায় আছি মসলিনকে আর বেশী ব্র্যান্ডিং করে গড়ে তুলতে। যেমনি ব্য্রান্ডিং করেছি জামদানী শিল্পকে। জেলার সকল গ্রাম পাড়া, মহল্লায় আমরা উদ্ভাবনীদের বিভিন্ন কাজের সম্পর্কে সকলকে অবগত করবো। আমি সব সময় এ কথাটা বলে থাকি এই নারায়ণগঞ্জ ‘পজেটিভ নারায়ণগঞ্জ’। নারায়ণগঞ্জ যেন সব সময় সুন্দর একটি সেতু বন্ধন বান্ধব এলাকা হিসেবে গড়ে উঠে। নারায়ণগঞ্জ একটি সমৃদ্ধিশালী জেলা। এই জেলায় দারিদ্রতার হার সবচেয়ে কম।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, ‘আপনাদের কোন কাজে মিসবিহেভ করা যাবে না। তাতে করে আপনার নিজের ও সংসারের ক্ষতি হতে পারে। সব সময় পজেটিভ দিকগুলো তুলে ধরতে হবে। নেগেটিভ দিকগুলো নিয়ে চিন্তা ভাবনা করে করা উচিত। আপনাদের চিন্তা করতে হবে কিভাবে কাজ করে আরও উপরের দিকে উঠা যায়।

মনে রাখবেন জেলা ব্র্যান্ডিংয়ের ক্ষেত্রে আমরা অন্যান্য জেলার চেয়ে অনেক বেশী এগিয়ে আছি। জেলা তথ্য অফিসকে আরও আধুনিকরন করা হবে। মনে রাখবেন যে সততার সহিত কাজ করেন তাকে তার সম্পাদক কিংবা মালিক সকলেই পছন্দ করবেন। ঢাকার চেয়ে অনেক নিরাপদ জায়গা এই নারায়ণগঞ্জ।’

বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজের পরিকল্পনা প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘ঢাকার পূর্বাঞ্চল এর মতো লিংক রোডের পাশে (এ) ক্যাটাগরী একটি ডিজিটাল টাউন গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে। ঢাকার কমলাপুর থেকে ডাবল রেল লাইনের প্রজেক্ট ইতিমধ্যেই পাশ করা হয়েছে। পাশাপাশি লিংক রোড থেকে চাষাড়া পর্যন্ত চার লেনের রাস্তার প্রস্তাব করা হয়েছে। ফুটওভার ব্রীজ নারায়ণগঞ্জে নেই। জালকুড়ি ও শিবু মার্কেটে দুটি ফুট ওভার ব্রীজ তৈরী করা হবে। লিংক রোডের পাশে মেডিক্যাল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাব করা হয়েছে। এই প্রকল্পের জন্য ২৪০ কোটি টাকার বরাদ্দের মধ্যে ১২০ কোটি টাকা হাতে পেয়েছি। কাশিপুরে ৩০ একরের অধিক জমিতে একটি আধুনিক আইসিটি পার্ক তৈরী করার পরিকল্পনা রয়েছে। বন্দরে ১০০ একর নীট পল্লী তৈরী করা হবে। আড়াইহাজার উপজেলায় জি টু জি ৫০০ একর জমিতে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হবে। এতে করে ওই অঞ্চলে ভাল একটি কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরী হবে। তারছাড়া জেলা কারাগারের ভেতরে সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের জন্য একটি মিনি গার্মেন্টস এর কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বন্দিরা যেন তার উপার্জনের টাকা তার পরিবার পরিজনদের কাছে পাঠাতে পারে। সারা বাংলাদেশে এটা হবে একটি মাইলক ফলক। দিনের বেলায় শহরের ভেতরে ট্রাক রাখতে দেওয়া হবে না। ইজি বাইক নিয়ন্ত্রনে আমরা সমঝোতার মাধ্যমে সমাধান করার চিন্তা করা হচ্ছে। কারন তারা এই উপার্জনের মাধ্যমে তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে বেঁচে থাকেন। আধুনিক ডিসি অফিস তৈরী করা হচ্ছে। এই ডিসি অফিস আপনাদেরই থাকবে। সবকিছু মিলিয়ে নারায়ণগঞ্জকে একটি (এ) ক্যাটাগরি জেলা হিসেব গড়ে তোলা হবে। নতুন প্রজন্মের উদ্ভাবকদের খোঁজে আজকের এই অনুষ্ঠানের আয়োজন।’

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা তথ্য অফিসার সিরাজদৌল্লাহ, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এড. মাহবুবুর রহমান মাসুম, বেসরকারী চ্যানেল এনটিভির জেলা প্রতিনিধি নাফিজ আশরাফ, দৈনিক ইয়াদ পত্রিকার সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন সহ জেলার অনলাইন পত্রিকা ও দৈনিক পত্রিকার সাংবাদিকবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here