নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, ফতুল্লা প্রতিনিধি: ফতুল্লার কাশীপুর হাট খোলা এলাকায় পরকিয়া প্রেমের টানে স্বামী সন্তান রেখে প্রবাসী প্রেমিক সাজুর কাছে চলে গেছে প্রেমিকা। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনার এক মাস পর ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে নুরুউদ্দিন শিকদার (৪৮)।
জানাযায়, ফতুল্লার কাশীপুর হাট খোলা এলাকার মো. নুর উদ্দিনের মেয়ে আয়শা আক্তার তাহমিনা (৩০)। তাকে মজিবুর রহমান নামের এক লোকের কাছে ইসলামের শরীয়ত মোতাবেক বিবাহ দেয়া হয়। বিয়ের পর থেকে মেয়ের জামাতা মজিবর চাকুরীর সুবাদে দূরে থাকে। এক মাস পরে আসে এবং ঠিক মতো তাহমিনার ভরন পোষন করে।

তাহমিনা পাশের বাড়ির মহি উদ্দিনের ছেলে সাজু (৩৫) বিভিন্ন সময় কথা বলে তার সাথে। এরপর তাদের মধ্যে পরকিয়া প্রেমের সৃষ্টি হয়। একপর্যায় সাজু প্রবাস জর্ডান থেকে বাংলাদেশে আসে। এরপর তাহমিনার সাথে আরো গভীর সম্পর্ক হয় সাজুর। বিদেশের নেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তাহমিনা কে আরো কাছে আনতে সক্ষম হয়েছে সাজু। গত ২৩ অক্টোবর তাহমিনাকে জর্ডান নিয়ে যায় সাজু। এখন তারা দু’জনেই প্রবাসে আছে। সেখান থেকে তাহমিনার মাকে ফোন করে সাজু।

তার মেয়েকে ফেরত আনতে হলে মুক্তিপন হিসেবে ২ লক্ষ টাকা দাবী করে সাজু তাহমিনার বাবা মায়ের কাছে।

এ ঘটনায় তাহমিনার বাবা সাজু, তার মা রুশনা বেগম (৪৫), মহি উদ্দিন (৫০), তার ছেরে সজল (৩৫) সহ ৫/৬ জনকে আসামী করে ২৪ নভেম্বর ফতুল্লা মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here