নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: পাকনা টিপু নামে খ্যাত নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সাথে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদল নেতা রাফিউদ্দিন রিয়াদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।
মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা আদালতপ্রাঙ্গনে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, সকালে মহানগর যুবদলের কয়েকজন নেতার সাথে আদালতে হাজিরা ও জামিনের কাজে যান রিয়াদ। এ সময় টিপুর সাথে দেখা হলে দুজনের মধ্যে কোন একটি বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়।
এক পর্যায়ে রিয়াদ টিপুকে মারতে উদ্যত হলে টিপু ও রিয়াদকে দুপাশে সরিয়ে দেয়া হয়। মহানগর ছাত্রদল নেতা রাফিউদ্দিন রিয়াদ জানান, আমি যুবদল ছাত্রদলের কয়েক নেতা জামিন ও হাজিরার জন্য আদালতপাড়ায় দাড়িয়ে ছিলাম। এমন সময় টিপু ভাই কথা বলতে থাকলে তাকে বলি, আপনারা মহানগর বিএনপি বিজ্ঞপ্তিতে যে মহিলা দলের নেত্রীদের গ্রেফতারের ঘটনায় পত্রিকায় ও ফেসবুকে নিন্দা ও প্রতিবাদ দিয়েছেন। তাতে আপনার আইডিতে সেখানে আমার মায়ের (নারায়ণগঞ্জ মহানগর মহিলা দলের সাবেক আহবায়ক রাশিদা জামাল) পদ পদবি দেননি কেন? আমার মা তার জীবনের বেশীরভাগ সময়ই তো দলের জন্য ব্যয় করেছে। তখন টিপু ভাই আমাকে বলে, আমি এগুলি দেই নাই, আর তর মা’য় বিএনপি করে নাকি করলে তো মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালামের সাথে যোগাযোগ করতো দেখতাম, তার সাথে রাজনীতি করতো কর্মসূচী করতো। এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে রিয়াদ বলেন, এসব কথা কি কালাম কাকা বলেছেন? আমি তাকে জিজ্ঞাসা করবো। তখন টিপু বলে জিজ্ঞাসা কর, পরে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতিতে পৌঁছালে উপস্থিত সকলে তাদেরকে দুইপাশে সরিয়ে দেয়।
এ ব্যাপারে আবু আল ইউসুফ খান টিপুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কে বলে এসব কথা? আমি কি আমার দলের কর্মীদের সাথে কথা বলতে পারব না। কথা বর্ণণা আর হাতাহাতি করা তো আর এক না? এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে রিয়াদ বলেন, জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটির শীর্ষ নেতাদের কাছে বিচার দাবি জানায়। একই সাথে আবুল কালাম এ ধরনের কোন কথা বলেছেন কিনা তাও তিনি প্রশ্ন রয়েছে। উল্লেখ্য, এর আগে আদালপাড়া বাহিরে একটি গলি আবু আল ইউসুফ খান টিপু-কে কে বা কাহার মারধর করে ছিল। তিনি এ ব্যাপারে ফতুল্লা থানা জিডিও করে ছিলেন। তৎকালীন গুঞ্জন ছিল বিএনপি এক নেতা ইশা রায় তাকে এই মারধর করে হয়েছিল।

 

 

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here