নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ফতুল্লার পাগলায় দেয়াল চাপায় একই পরিবারের তিন বোনসহ ৪ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২৩ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ফতুল্লার পাগলা শান্তি নিবাস জসিম মিয়ার কলোনীতে এ ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন, পাগলা শান্তি নিবাস এলাকার জসিমের কলোনীতে বসবাসরত সাইফুল ইসলামের তিন শিশু মেয়ে লামিয়া (১০), লাবনী (৮) ও লিমা (২)। অপরজন ফিরোজ মিয়ার পুত্র সাদেকুর রহমান (৪০)।

নিহত তিন বোনের পিতা সাইফুল ইসলাম পেশায় একজন ট্রাক হেলপাড় এবং তার স্ত্রী নাসিমা বেগম বাসা-বাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ করে সন্তানদের নিয়ে বসবাস করে আসছিল।

জানা গেছে, পাগলা শান্তি নিবাস জসিম উদ্দিনের বস্তিতে দীর্ঘ দিন ধরেই ঝুকিপূর্ন অবস্থায় দাঁড়িয়ে ছিল জনৈক চাঁনু মিয়ার মালিকানা ১০ ফুট উচ্চতার দীর্ঘ প্রসস্থ একটি দেয়াল। একালাকাবাসী দেয়ালটি ভেঙ্গে ফেলার জন্য মালিক চাঁনু মিয়াকে একাধিকবার তাগিদ দেয়।

পরবর্তীতে সোমবার সকালে চাঁনু মিয়া ৫জন শ্রমিক দ্বারা দেয়ালটি ভাঙ্গার কাজ শুরু করে। কিন্তু চাঁনু মিয়ার নির্দেশনায় শ্রমিকরা দেয়ালের উপর থেকে না ভেঙ্গে নীচ হতে ভাঙ্গা শুরু করে। একপর্যায়ে ১০ ফুট উচ্চতার পুরো দেয়ালটি পাশেই খেলতে থাকা সাইফুল ইসলামের তিন শিশু মেয়ের উপর পড়লে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। আর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে নেয়ার পথে সাদেকুর রহমান মারা যান।

এঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ২ জন। এরা হলেন-মোস্তফা (২৩) ও ইউসুফ (২২)।

এদিকে, ঘটনার পর থেকেই পলতক রয়েছে দেয়াল মালিক চাঁনু মিয়া। সে ফতুল্লার দেলপাড়া এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

এছাড়াও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ফতুল্লা মডেল থানার ওসি (অপারেশন) মজিবুর রহমান। তিনি জানান, ‘সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে এসেছি। তবে, দেয়াল মালিক ও শ্রমিকদের ঘটনাস্থলে পাইনি।’

এদিকে, এঘটনায় পুরো পাগলা এলাকা জুড়ে শোকের মাতম বইছে। একই সাথে তিন সন্তান হারিয়ে কোল শুন্য বাবা-মা’র কান্যায় যেন ভারি হয়ে উঠেছে শান্তি নিবাস তথা গোটা পাগলা এলাকা। ক্ষনে ক্ষনে-ই মূর্ছা যাচ্ছিলেন সদ্য তিন সন্তান হারানো মা নাসিমা বেগম।

প্রায় বাকরুদ্ধ হয়ে উঠা মা নাসিমা বেগম শুধু বললেন, ‘আমার মেয়েরা খেলতে যাবে বলে ঘর থেকে বের হয়েছিল। যা আর কোন দিনও বলবে না ওরা।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here