নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: পুলিশকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ার ঠিক একদিন পরেই আটক হলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন।
আর তার সাথে থাকায় আটক হন আরো ২ জন নেতা। এরা হলেন, জেলা স্বেচ্ছা সেবকদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ার প্রধান ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম জেলা কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাঈনুদ্দিন।

সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারী) সকাল সাড়ে ১০ ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের সাইনবোর্ড চৌরঙ্গী ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে তাদের আটক করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ সদর মডেল থানায় সোপর্দ করেন।


জানাগেছে, এদিন সকালে সিলেটে মাজার জিয়ারতের লক্ষ্যে ঢাকা গুলশান থেকে গাড়ীযোগে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জ হয়ে যাওয়ার পথে তাকে স্বাগত জানাতে শো ডাউনের লক্ষ্যে চৌরঙ্গী ফিলিং স্টেশনের সামনে নেতাকর্মীদের নিয়ে জড়ো হওয়ার চেষ্টা করেন এড. সাখাওয়াত হোসেন খান। কিন্তু তিনি সেখানে দাঁড়ানোর কিছুক্ষনের মধ্যেই পুলিশ তাদের আটক করে নিয়ে যান।

আটকের পর তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় পুলিশের গাড়ীতে বসেই এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, ‘রাস্তায় এদশের সাধারন মানুষের হাঁটাচলার অধিকার টুকুও এই অবৈধ সরকার হরন করে নিয়েছে।’

এরআগে, গত ৪ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জের তিনটি থানায় পুলিশের দায়েরকৃত নাশকতার মামলায় বিএনপির নেতাকর্মী গ্রেফতারসহ নতুন করে প্রায় ৫শ’ জন আসামী হওয়ায়, মামলা সম্পর্কে বলতে গিয়ে সাখাওয়াত হোসেন পুলিশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বলেন, ‘এ পর্যন্ত যে কটি মামলা পুলিশ দায়ের করেছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, মিথ্যা। পুলিশ একটি মামলারও প্রমাণ দেখাতে পারবে না। যদি একটি মামলায় পুলিশ নাশকতার প্রমাণ দেখাতে পারে তাহলে বিএনপির নেতাকর্মীদের নিয়ে আমি আদালতে আত্মসমর্পণ করবো।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here