নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: পুলিশের চলমান এ্যাকশনে লোকসানের মুখে পড়ে দিশেহারা হয়ে উঠেছেন নগরীর ফুটপাতের হকাররা। লাখ লাখ টাকার শীতবস্ত্র কিনে এখন উচ্ছেদের ভয়ে তা অন্যত্র লুকিয়ে রাখতে হচ্ছে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ক্ষুদ্র হকাররা।
বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) সরেজমিন নগরীর ২নং রেলগেট এলাকা থেকে চাষাড়া ও ফলপট্টী এলাকা থেকে কালীরবাজার পর্যন্ত ঘুরে দেখাগেছে গুটি কয়েক চায়ের দোকান ছাড়া পুরো ফুটপাতই ছিল খালি। আবার কখনো কখনো চলছে পুলিশ হকার ভৌ দৌঁড়।

জানাগেছে, চলছে শীতের মৌসুম। তাই নগরীর ফুটপাতগুলো হয়ে উঠেছিল সাধারন মানুষের শীত বস্ত্রের একটি ক্ষুদ্র মার্কেট। অতি স্বল্প দামে তারা এসব ফুটপাত থেকে শীতের গরম কাপড় কিনতে পারতেন। এখন নগরীতে নেই কোন প্রকারের ফুটপাতের হকার, তাই সাধারন ক্রেতারা কেনাকাটা নিয়ে অনেকটা বিপাকে রয়েছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নগরীর একাধিক ক্ষুদ্র ফুটপাত ব্যবসাযীরা জানান, শীতের মৌসুমকে সামনে রেখে আমরা শীতবস্ত্র কিনে এখন দিশেহারা। পরিবার পরিজন নিয়ে আমরা এখন অতি কষ্টে এখন দিন কাটাচ্ছি। এভাবে চলতে থাকলে আমাদের না খেয়ে মরতে হবে। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নিয়মতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় আমরা নিদ্দিষ্ট সময়ে ফুটপাতে ব্যবসা পরিচালনা করছিলাম, কিন্তু হঠাৎ করেই পুলিশ আমাদের উপর চড়াও হয়ে ফুটপাতের দোকান উচ্ছেদ করছেন। আমরা গরীব বলে কি আমাদের ব্যবসা করার কোন সুযোগ নেই?

এদিকে, পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে নগরীতে ফুটপাত হকারমুক্ত রাখার প্রক্রিয়া চলমান থাকবে।

উল্লেখ্য, গত ২৫ ডিসেম্বর ফুটপাত ইস্যুকে কেন্দ্র করে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর শাহীন শাহ্ পারভেজ প্রত্যাহার হওয়ার পরক্ষন থেকেই নগরীর ফুটপাতে উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত রেখেছে পুলিশ প্রশাসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here