নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বাংলায় একটি প্রবাদ আছে-‘যেখানে বাঘের ভয়, সেখানেই রাত পার হয়!’ ঠিক তেমনটাই হয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের ক্ষেত্রে। প্রত্যেকবার নগরীর ডিআইটিস্থ মর্গ্যান বালিকা স্কুলের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে পুলিশের প্রতিরোধের মুখে পড়ায় এবার স্থান পরিবর্তন করে জিমখানা কিন্ডার কেয়ার স্কুলের গলি থেকে মিছিল বের করলেও দু’ কদম এগুতেই পুলিশের বাঁধার মুখে পড়তে হয় জেলা যুবদলের নেতৃবৃন্দদের।
বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নগরীতে জেলা যুবদলের সভাপতি মোশারফ হোসেনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হলেও পুলিশের লাঠিচার্জে তা পন্ড হয়ে যায়।

শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের বিপরীত মুখী সড়ক থেকে এই বিক্ষোভ মিছিল বের করে জেলা যুবদল। কিন্তু কিছুদূর না এগুতেই পুলিশ তাদের ব্যানার কেড়ে নিয়ে লাঠিচার্জ করে মিছিলে থাকা নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এসময় পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হন জেলা যুবদলের সভাপতি মোশারফ হোসেন, সাধারন সম্পাদক শাহ আলম মুকুল, ফতুল্লাা থানা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমানসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী।

এব্যাপারে জেলা যুবদলের সভাপতি মোশারফ হোসেন বলেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণ মিছিল বের করলেও পুলিশ লাঠিচার্জ করে আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করছে। কিন্তু পুলিশের হামলা মামলার ভয় আর যুবদলের নেতাকর্মীরা পায় না। অবৈধ সরকারের পতন হওয়ার আগ পর্যন্ত যুবদলের নেতাকর্মীরা রাজপথে আন্দোলন চালিয়ে যাবে।’

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর শাহীন শাহ পারভেজ বলেন, ‘বিনা অনুমতিতে জেলা যুবদলের নেতাকর্মীরা নগরীতে মিছিল বের করে জনগণের চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করায় তাদের লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here