নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: পুলিশের গ্রেফতার হুমকির কারনে স্থগিত করা হয়েছে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে নগরীতে আয়োজিত নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আনন্দ র‌্যালী। তবে বিকেলে ঘরোয়া পরিবেশে মহানগর যুবদলের উদ্যোগে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করেন নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৩৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপনের লক্ষ্যে সক্ল ১০ টায় নগরীতে আনন্দ র‌্যালীসহ নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে ৩৯ পাউন্ডের কেক কাটার আয়োজন করেছিল মহানগর যুবদল।

কিন্তু এদিন সকালে শান্তিপূর্ণ ভাবে কর্মসূচী পালনের স্বার্থে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের অনুমতি চাইলে পুলিশ উল্টো গ্রেফতারের হুমকি দেন বলে ভারক্রান্ত হৃদয়ে নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, মহানগর যুবদল আহ্বায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

তিনি বলেন, ‘বছর জুড়ে সরকারের নানা নীপিড়নের পরেও ভেবেছিলাম অত্যন্ত পক্ষে একটি দিন দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে আনন্দ করবো। কিন্তু সেটাও পুলিশ করতে দিল না। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপনে নগরীতে সকাল ১০ টায় র‌্যালী বের করার জন্য সদর মডেল থানা পুলিশের অনুমতি চাওয়া হলে পুলিশ র‌্যালী বের করতে নিষেধ করেন। শুধু তাই নয়, যদি র‌্যালী বের করা হয় তাহলে গ্রেফতারের পাশাপাশি নতুন করে মামলাও দেয়া হবে বলে হুমকি দেয়া হয়। তাই প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সকালের আয়োজিত র‌্যালী ও কেক কাটা অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়েছে।’

যার ফলশ্রুতিতে শুক্রবার বিকেল ৩ টায় মাসদাইরস্থ মজলুম মিলনায়তনে মহানগর যুবদলের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটার আয়োজন করেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ৩৯ পাউন্ডের কেক কেটে দলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করা হয়।


কেক কাটার পূর্বে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেন, ‘মহানগর যুবদলকে এজন্যই বাকশালী সহযোগীদের যত ভয়। জন¯্রােতে ভীত পুলিশ বলেই মহানগর যুবদলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী বানচালের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে। কিন্তু বন্ধ করা যায়নি যুবদলের কর্মসূচী। আমাদের সবচেয়ে বড় ভুল ছিলো প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি চাওয়া। কারন, একটি স্বাধীন গনতান্ত্রিক দেশে রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করতে প্রশাসনের অনুমতি প্রয়োজন হয় না। তাই আগামীতে আমরা আর প্রশাসনকে জানিয়ে কোন কর্মসূচীর আয়োজন করবো না।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সাবেক নগর বিএনপি নেতা রাসেল আহমেদ মনির, মহানগর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক সানোয়ার হোসেন, মমতাজ উদ্দিন মন্তু, রানা মুজিব, জুয়েল প্রধান, জুয়েল রানা, সাগর প্রধান, মাসুদ রানা, যুবদল নেতা জয়নাল আবেদীন, মো: ইছালউদ্দিন, আ: রহমান, রিটন দে, শওকত খন্দকার, সাইফুর প্রধান, ইউনুছ খান বিপ্লব, আল-আমিন খান, মাহাবুব হাসান জুলহাস, মুহিব রিপন, ওসমান গনি, মো: শহীদ, মিঠু, আক্তার হোসেন অপু, আল-মামুন, মন্জু মিয়া, সুমন ভুইয়া, মো: সেলিম প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here