নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: দলীয় চেয়ারপার্সণ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে আয়োজিত জনসভায় যোগ দিতে সোমবার ঢাকামূখী হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। আর সে লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই সম্পন্ন করেছেন বলে জানিয়েছেন দলটির নেতারা। দলীয় চেয়ারপার্সণের মুক্তির দাবী এখন বিএনপি নেতাকর্মীদের অস্তিত্বের লড়াইয়ে পরিনত হয়েছে আর এ লড়াইয়ে অংশ নিতে সকল বাঁধা বিপত্তি পেরিয়ে আজ ঢাকা যাওয়ার প্রত্যায় ব্যক্ত করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি’র নেতাকর্মীরা।

ঢাকার জনসভায় যোগ দেওয়ার দৃঢ় প্রত্যায় ব্যক্ত করে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, আমাদের নেত্রী আমাদের ‘মা’, আর মায়ের মুক্তির দাবীতে তার সন্তানদের কোদিন আটকে রাখা যায়! আমরা অবশ্যই ঢাকায় যাবো এবং সে লক্ষ্যে আমাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

একই বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, আমাদের দলীয় চেয়ারপার্সণ ও তিনবারের প্রধাণমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে আয়োজিত জনসভায় যোগ দিতে আমরা বদ্ধ পরিকর। নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি’র উদ্যোগে প্রায় ২০ থেকে ৩০ হাজার নেতাকর্মীর সমাবেশ ঘটানোর সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আমাদের নেত্রীর মুক্তির দাবী এখন আমাদের অস্তিত্বের লড়াইয়ে পরিনত হয়েছে। আর তাই এ লড়াইয়ে অংশ নিতে আমাদের কেউ আটকে রাখতে পারবে না।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন ঢাকার জনসভায় যোগদানের বিষয়ে নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, সরকার উদ্দেশ্যমূলকভাবে আমাদের নেত্রী আমাদের মা বেগম খালেদা জিয়ার জামিন শুনানীর দিন সোমবার নির্ধারণ করেছে যাতে করে এটাকে উপলক্ষ্য করে আইন শৃঙ্খলা বিঘœ হওয়ার উছিলা দেখিয়ে আমাদের জনসভাকে অনুমতি দেওয়া থেকে বিরত থাকতে পারে। কিন্তু সকল বাঁধা বিপত্তি উপেক্ষা করে কেন্দ্রেীয় নির্দেশনা মোতাবেক আমাদের মায়ের মুক্তির দাবীতে আমরা জনসভা সফল করবো। নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি যৌথভাবে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে ঢাকা যাওয়ার পূর্ণ প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

‘অনুমতি পাই আর না পাই, যে কোন কিছুর বিনিময়ে নেত্রীর মুক্তির দাবীতে ১২ তারিখ ঢাকার যে কোন স্থানে যে কোন সময় জনসভা অনুষ্ঠিত হবে, আর নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের প্রতিটি নেতাকর্মী সে জনসভায় যোগ দিতে মরিয়া হয়ে অপেক্ষা করছে। খুলনায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে সমাবেশ করতে পারলে আমরা পারবো না কেন! ঢাকার জনসভায় যাওয়ার বিষয়ে আমরা অটল অবস্থানে আছি’ বলেছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

এই লক্ষ্যে আগামী ১২ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত বিশাল জনসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির শীর্ষস্থানীয়দের সাথে প্রস্তুতি মূলক বৈঠক করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

গত ৭ মার্চ সন্ধ্যায় বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে এই বৈঠক করেন নেতৃবৃন্দরা। সমাবেশ সফল করার জন্য বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে ঢাকা বিভাগের কো-অর্ডিনেটর করা হয়।

মহাসচিবের সাথে এদিন বৈঠকে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক বদরুজ্জামান খসরু, সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, কার্যনির্বাহী সদস্য ও সাবেক সাংসদ আলহাজ¦ মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন আহাম্মেদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ^াস, সহ-সভাপতি ও সাবেক সাংসদ আলহাজ¦ আতাউর রহমান আঙ্গুর, আব্দুল হাই রাজু, মনিরুল ইসলাম রবি, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল, সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল যুগ্ম অঅহ্বায়ক এড. আনোয়ার প্রধান।

কিন্তু নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতৃবৃন্দরা সমাবেশে যাওয়ার প্রস্তুতি নিলেও শেষতক সমাবেশের অনুমতি না মিলায় তাদের সোমবার আর ঢাকামুখী হতে হচ্ছেনা বলে শীর্ষস্থানীয় একাধিক নেতা জানায়। আর সেই বাড়তি চাপ থেকে তাদের মুক্তি মিলেছে বলে দাবী করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here