নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: কথিত হকার্স লীগ নেতা লিয়াকত হোসেন রনি ওরফে টাউট রনির দায়েরকৃত চাঁদাবাজির মামলায় নাসিক ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বিএনপি নেতা ইকবাল হোসেনসহ ৪ জনের জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
মঙ্গলবার (২০ মার্চ) দুপুরে অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট অশোক কুমার দত্তের আদালতে আত্মসমর্পণ করে মামলার ৫ আসামী জামিন চাইলে আদালত একজনের জামিন প্রদান এবং কাউন্সিলরসহ ৪ জনের নামঞ্জুর করেন।

মামলার জামিন প্রাপ্ত আসামী হলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টুর ভাগ্নে রাজু।

তিনি জানান, ‘সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন মৌচাকে তার মামা আব্দুল আইয়াল মিন্টুর প্রায় ৯৬ শতাংশ জমি রয়েছে। যেখানে প্রায় দুই ডজনেরও বেশী গরু রয়েছে। আর এই জমির পাশে প্রতারক রনির কিছু জমি থাকার সুবিদার্থে মামার জমিসহ গরু গুলো দেখভালের জন্য প্রথমে রনিকে দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু সে গাভীর দুধ অন্যত্র বিক্রি করে দেয়াসহ নানাভাবে মামার বাসা থেকে প্রায় ৫৪ লাখ টাকা এনে আত্মসাৎ করে। পরবর্তীতে মামা যখন রনির প্রতারনার বিষয়টি জানতে পারেন, তখন তিনি রনিকে জমি দেখাশুনার দায়িত্ব থেকে বাদ দিয়ে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনকে দায়িত্ব দেন। তারপর ইকবাল হোসেনসহ জমির পাশে থাকা কয়েকজন দোকানদার দেখভালের দায়িত্ব পাওয়ার পর তাদের উৎখাতে নানা ষড়যন্ত্র শুরু করে প্রতারক রনি।’

রাজু আরো জানান, সম্প্রতি প্রতারক রনি সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মিথ্যা চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করে। এতে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেন, আব্দুল আউয়াল মিন্টুর ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান মাল্টিমোড লিমিটেডের এসিসট্যান্ট ম্যানেজার আবু শাহাদাত মো: সায়েম, জমির পাশ্ববর্তী দুইজন দোকানদার আবু তাহের, হাজী জহিরুল ইসলামসহ তাকে আসামী করা হয়।

এপ্রসঙ্গে আসামী পক্ষের আইনজীবী এড. হাবিব আল মুজাহিদ পলু ও এড. হাবিবুর রহমান মাসুম নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারী ও ৮ মার্চ বাদীপক্ষ লিয়াক হোসেন রনি তার প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৩০ লাখ টাকার মালামাল লুট এবং ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবীর অভিযোগ এনে গত ১৩ মার্চ সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় কাউন্সিলরসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় মঙ্গলবার আদালতে আত্মসমর্পণ করে আসামীরা জামিন চাইলে আদালত কাউন্সিলরসহ ৪ জনের জামিন নামঞ্জুর করে রাজুর জামিন মঞ্জুর করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here