নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: প্রতিরোধের মুখেও ৫০ বছরের বেশী পুরানো শহরের জিমখানা বস্তি উচ্ছেদে সফল হয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন।
শনিবার (২৯ জুলাই) সকাল ১১টায় শহরের জিমখানায় অবস্থিত বস্তিতে নাসিক মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর পক্ষ থেকে নাসিক ১৬, ১৭ ও১৮ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আফরোজা হাসান বিভার নেতৃত্বে স্থানীয় এলাকাবাসী ও নাসিক এর পরিচ্ছন্নকর্মীরা উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেয়।


উচ্ছেদ অভিযানকালে প্রথমে বস্তিবাসীর প্রতিরোধের মুখে পড়েন পরিচ্ছন্নকর্মীরা। পরে বস্তির ক্ষুব্ধ লোকেদের ইটপাটকেলে নিক্ষেপে নাসিকের তিনজন পরিচ্ছন্ন কর্মীসহ স্থানীয় প্রায় ২৫/ ৩০ জন এলাকাবাসী আহত হন। কিন্তু তাতেও থেমে থাকেনি উচ্ছেদ অভিযান। পরবর্তীতে বাধ্য হয়ে নিজেদের গৃহস্থালী সামগ্রী অন্যত্র সরিয়ে নিতে বাধ্য হন বস্তিবাসী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ১১ টার দিকে প্রথমে নাসিক পরিচ্ছন্নকর্মীরা বোল ড্রেজার নিয়ে বস্তির ভেতরে প্রবেশ করতে গেলে বাঁধা দিতে সামনের দিকে এগিয়ে আসেন বস্তির শত শত নারী পুরুষ। এ সময় তাদের হাতে ইটপাটকেল, লাঠি ও মহিলাদের হাতে ধারালো বটি দেখতে পাওয়া যায়। কোন কিছু বেঝে উঠার আগেই বস্তিবাসী নাসিক পরিচ্ছন্নকর্মীদের উদ্দেশ্যে ইটপাটকের ছুরতে থাকে। তাদের ছোড়া ইটপাটকেলে নাসিক এর তিন পরিচ্ছন্নকর্মী সহ ২৫/৩০ জন এলাকাবাসী গুরুতর আহত হন। প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য আহতদের নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়।

তবে জিমখনা বস্তিবাসীর প্রতিরোধ মাত্র ২০ মিনিট স্থায়ী ছিল। এরপর থেকে বোলড্রেজার দিয়ে এক নিমেশেই গুড়িয়ে দেওয়া হয় বস্তির শত শত ঘর বাড়ি।


এসময় এলাকাবাসী স্বস্তি প্রকাশ করে জানান, নারায়ণগঞ্জবাসীর প্রানের দাবি ছিল এই জিমখানা বস্তি অপসারন করার। আজ সেই স্বপ্ন পূরন হলো শহরবাসীর। নাসিক মেয়রকে আমরা ধন্যবাদ আর সাধুবাদ জানাই। এই জিমখানা বস্তির কারনে এলাকায় মাদক ব্যবসা সহ নানা ধরনের অপকর্ম চলতো। নগরবাসী এর থেকে পরিত্রান পেল। তাছাড়া এই উচ্ছেদের ফলে জিমখানা লেকটির সৌন্দর্য্য আরো বেশী বৃদ্ধি পাবে বলে তারা মনে করেন।

এব্যাপারে অভিযানের নেতৃত্বে থাকা নাসিক সংরক্ষিত ১৬, ১৭ ও ১৮নং আসনের মহিলা কাউন্সিলর আফরোজা হাসান বিভা তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘নাসিক মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর পক্ষ থেকে আমার ও এলাকাবাসীর নেতৃত্বে এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছি। বস্তিবাসীদেরকে আমরা এক বছর ধরেই সতর্ক করে জানিয়েছিলাম এখান থেকে সরে যাওয়ার জন্য। তারা আমাদের নির্দেশ মানছিলো না। তাই উচ্ছেদ চালানো হয়েছে।’


তবে বস্তিবাসীদের উচ্ছেদের পূর্বে সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে কখনো পুনর্বাসনের আশ^াস দেয়া হয়নি বলে দাবী করেন এই কাউন্সিলর।

এরআগে গত ২৭ জুলাই জিমখানায় গিয়ে বিভা হাসান বস্তিবাসীদের শনিবার উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছিলেন।
উল্লেখ্য, বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ণে রাজধানীর হাতির ঝিলের আদলে জিমখানা এলকায় একটি দৃষ্টিনন্দন লেক নির্মান করছে সিটি কর্পোরেশন। যা আগামী বছরের শুরুতেই উদ্বোধনের কথা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here