নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: সভা সমাবেশে প্রশংসা করতে করতে নেতারা মুখে ফেনা তুলে ফেললেও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কৃতিত্বে কোন ‘রা’ নেই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগে। যেন অনেকটাই ‘উচ্ছাসহীন’ নীরবতা পালন করছেন ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষস্থানীয়রা বলে অভিমত তৃণমূলের।

জানাগেছে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী তথা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনাকে বিশ্বের ২য় সেরা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সদ্য স্বীকৃতি দিয়েছে সিঙ্গাপুর ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান দ্য স্ট্যাটিস্টিকস ইন্টান্যাশনাল।

পাশাপাশি স্বল্পন্নোত থেকে উন্নয়ণশীল দেশ হিসেবেও বাংলাদেশকে সদ্য জাতিসংঘ স্বীকৃতি দিয়ে বৃহস্পতিবার (২২ মার্চ) আনুষ্ঠানিক ভাবে স্বীকৃতিপত্রটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেয়াকে কেন্দ্র করে সারাদেশে আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।

কিন্তু শেখ হাসিনার আমলে উন্নয়ণশীল দেশে উত্তরনের স্বীকৃতি পাওয়ায় সরকারী ভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন আনন্দ উৎসব উদযাপন করলেও এতে ক্ষমতাসীন দল নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ পৃথক সভানুষ্ঠান করলেও নিষ্ক্রিয় ছিল মহানগর আওয়ামীলীগ। আর মহানগরের শীর্ষস্থানীয়দের এমন নীরবতায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

সাম্প্রতিক সময়ে দেখাগেছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ জাতিসংঘ কর্তৃক ‘মেমোরী অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ এবং তারই সুযোগ্য কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাশ^বর্তী দেশ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে নির্যাতিত হয়ে বাংলাদেশে আসা প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দিয়ে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার পর আনন্দ উল্লাস, মিষ্টি বিতরন ও সাংস্কৃতিক সভা সমাবেশ করেছিল নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের শীর্ষস্থানীয় থেকে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী সম্ভাব্য প্রার্থীরাসহ সহযোগী সংগঠন যুবলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিকলীগ, তাঁতীলীগ, ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

অথচ, পরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বড় দু’টি অর্জনে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের নীরবতা যেন কোনক্রমেই মেনে নিতে পারছেনা তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা।

তবে প্রধানমন্ত্রীর কৃতিত্বে গত ২০ মার্চ বক্তাবলী ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ আয়োজিত নির্বাচনী কেন্দ্র কমিটি গঠনের কর্মীসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যকালে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের আওয়ামীলীগের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ এ কে এম শামীম ওসমান প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি আগামীতেও উন্নয়ণের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হলে মাতৃতুল্য নেত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে তৃণমূল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

আর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশী এড. আনিসুর রহমান দিপু গত ২১ মার্চ গণমাধ্যমে প্রেরিত বিবৃতির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিবাদন জানিয়ে বলেছিলেন, ‘মাদার অব হিউম্যানিটি খ্যাত, সফল রাষ্ট্রনায়ক ও জননেত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের ২য় সেরা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ভূষিত হওয়ায় বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষ আজ গর্বিত এবং আমাদের জন্য এটা বিশাল একটি অর্জন। তার এ অর্জন উপলক্ষ্যে তাকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও সাধুবাদ জ্ঞাপন করছি।’

এড. দিপু আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নিরলস প্রচেষ্টা, সামনে থেকে দেশকে এগিয়ে নেবার প্রত্যয় ও সঠিক পরিকল্পনার কারণেই ডিজিটাল, আধুনিক, দারিদ্রতামুক্ত, টেকসই বাণিজ্য ব্যবস্থা উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও ভিশন ২০২১ এ বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে বিশ্বের বুকে মাথা তুলে দাঁড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি সর্বদা চ্যালেঞ্জ নিতে ভালবাসেন এবং সর্বদা সাহসিকতার সাথে দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। তার উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে হলে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে তাকে আগামীতেও প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে।’

কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর এমন উল্লেখ্যযোগ্য কৃতিত্বে উচ্ছাসহীন কেন নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ- এমন প্রশ্নের উত্তর জানতে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি মুঠোফোন রিসিভ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here