নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে রাজধানীর পাশ্ববর্তী জেলা হিসেবে অতি গুরুত্বপূর্ণ নারায়ণগঞ্জ জেলাধীন ৫টি আসনেই ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ অন্য কোন দলকে আসন ছাড় না দেয়ার দাবীতে অনড় অবস্থানে থাকলেও খোদ তারাই প্রার্থীতা নিয়ে রয়েছেন কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের প্রতিক্ষায়।
বিপরীতে যাদের নিয়ে মাথাব্যাথা আওয়ামীলীগের, সেই জাতীয়পার্টি ইতিমধ্যেই তিনটি আসনে দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণার পাশাপাশি ৫টি আসনেই প্রার্থী দেয়ার লক্ষ্যে চালিয়ে যাচ্ছেন প্রয়াস।

দলীয় সূত্রে জানাগেছে, গত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ গ্রহণ না করায় নারায়ণগঞ্জ জেলাধীন ৫টি আসনের মধ্যে জাতীয়পার্টিকে দু’টি আসন ছাড় দেয় আওয়ামীলীগ। যার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব আলহাজ¦ লিয়াকত হোসেন খোকা ও নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ এ কে এম নাসিম ওসমান বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় এমপি নির্বাচিত হন।

কিন্তু ২০১৪ সালের ৩০ এপ্রিল নাসিম ওসমান ইন্তেকাল করার পর তার শূণ্য আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে উপ-নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে এমপি নির্বাচিত হন বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিম ওসমান।

তবে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আর কোন আসনেই জাতীয়পার্টিকে ছাড় দিতে চাইছেন না আওয়ামীলীগ। ইতিমধ্যেই তারা কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনেই নৌকার প্রার্থী দেয়ার দাবী জানিয়েছেন। তারা প্রতিনিয়তই দাবী তুলছেন, যদি জাতীয় পার্টিকে কোন আসন ছাড় দিতে হয়, তবে তা যেন অন্য জেলায় দেয়া হয়। নারায়ণগঞ্জের কোন আসন জাতীয়পার্টিকে ছাড় দেয়া হবেনা।

আর তাই আসন্ন সংসদ নির্বাচনে বিএনপি যদি অংশ গ্রহণ করে তাহলে সেক্ষেত্রে নারায়ণগঞ্জের দু’টি আসন (৩ ও ৫) আবারও আওয়ামীলীগ যে ছাড় দিবে, তা অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে গেছেন বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তবে বিএনপি যদি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ নাও করে, আর এক্ষেত্রে যদি নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনেই জাতীয় পার্টির প্রার্থী দিতে হয়, তাহলে সেই লক্ষ্যেও প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন দলটির শীর্ষন্থানীয় নেতৃবৃন্দরা।

কারন ইতিমধ্যেই গত বছর নারায়ণগঞ্জ জেলায় সফরে এসে দলীয় চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লাঙ্গলের প্রার্থী হিসেবে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে সেলিম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে আলহাজ¦ লিয়াকত হোসেন খোকা এবং নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিমার সদস্য ও জাতীয় যুব সংহতির সভাপতি আলমগীর সিকদার লোটনের নাম করে গেছেন ঘোষণা।

আর নারায়ণগঞ্জ-৪ আসন থেকে জাতীয়পার্টির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন মোল্লা খোকা লাঙ্গল প্রত্যাশী হলেও নারায়ণগঞ্জ-১ আসনে এখনো কোন প্রার্থীর নাম শোনা যায়নি।

কিন্তু আসন নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের বর্তমান এমপি নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের গাজী গোলাম দস্তগীর বীর প্রতিক, নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে আলহাজ¦ এ কে এম শামীম ওসমান ও নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম বাবু পুনরায় এমপি মনোনয়ন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে এগিয়ে রইলেও উক্ত আসন গুলোতে নৌকা প্রত্যাশী কয়েক ডজন সম্ভাব্য প্রার্থী থাকায় এখন নির্বাচনের আগমুহুর্ত পর্যন্ত ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রতিক্ষায় থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here