নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, ফতুল্লা প্রতিনিধি: আমি রাষ্ট্রের দেয়া পোশাক পরে রাষ্ট্রের জন্য কি করতে পেরেছি, আমি কতটুকুই বা রাষ্ট্রকে দিতে পেরেছি তার হিসেব নিকেশ করে পথ চললে জীবনে অনেক বড় হওয়া যায়। রাষ্ট্র আমাকে দিবে আর আমি রাষ্ট্রের জন্য কিছু করবোনা তা হতে পারেনা। আমি সমাজে জনগনের সামন্য প্রশাসনের কর্তা হিসেবে জনগন কে কতটুকু দিতে পারছি বা আমার দ্বারা তারা কতটুকু সন্তুষ্ট তা আমার কর্মে ফুটে উঠবে।
মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) গ্রাম পুলিশের পরিচয় পত্র বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেছেন, ফতুল্লা মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ মো. কামাল উদ্দিন।

তিনি আরো বলেছেন, ১৮৬১ খ্রিষ্টাব্দে পৃথিবীতে পুলিশ প্রশাসনের সৃষ্টি হয়। আর পুলিশের কাজের গতি বৃদ্ধি এবং পুলিশকে অপরাধী চিহ্নিত করতে সহায়তার করাজন্যই পুলিশের পাশাপাশি গ্রাম পুলিশ বাহিনী সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি যখন ফতুল্লা মডেল থানায় যোগদান করেছি। তখন এসে গ্রাম পুলিশের অস্তিত্ব খুঁজে পাইনি। গ্রাম পুলিশের কাজের কোন গতি দেখি নাই। এরপর আমি আমার সিনিয়র অফিসার মহোদয়ের সাথে আলোচনা করে জেলা পুলিশ লাইনস কমিউনিটি পুলিশের সমাবেশে গ্রাম পুলিশদের জন্য আলাদাভাবে বসার ব্যবস্থা করেছি। গ্রাম পুলিশের কাজের গতি বৃদ্ধির লক্ষ্যে তাদের জন্য পরিচয় পত্র দিচ্ছি। গ্রাম পুলিশের পোশাক ছাড়া তার পরিচয় জানা যায়না। এখন সিভিলে থাকলেও পরিচয় পত্র সাথে থাকলে জনগন চিনবে সে গ্রাম পুলিশ। গ্রাম পুলিশ সদস্যদের মূল্যয়নে ব্যাক্তিগত পরিচয়পত্র প্রদান, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন ভিত্তিক গঠিত কমিনিটি পুলিশং কমিটির সদস্যকরণ,পুলিশি কার্যক্রমে একিভূতকরণ, ভালো কাজে পুরস্কার দেব।

গ্রাম পুলিশ সদস্যদের কার্যক্রম হলো, জঙ্গিদের সম্পর্কে তথ্য প্রদান করা, ভাড়াটিয়াদের সম্পর্কে তথ্য প্রদান করা,গ্রাম এলাকায় নতুন আগšুÍক এর বিষয় তথ্য প্রদান করা, চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী এবং তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসীদের বিষয় তথ্য প্রদান করা, ওয়ারেন্টভূক্ত আসামীদের বিষয় তথ্য প্রদান করা, এছাড়া বিভিন্ন ওয়ার্ডে বা গ্রামে যে যার মহল্লা বা এলাকায় কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমে অংশগ্রহন করা।

তিনি আরো বলেন, আমি বাংলাদেশের সেরা থানা গুলশান থানায় চাকুরী করেছি। সেখানে এক পা বাড়ালেই বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিক ভাইদের সাথে দেখা হতো। আমি আমার ভালোবাসা ও কাজের দক্ষতা দিয়ে মিডিয়া বান্ধব হয়েছি। ফতুল্লায় এসেও আমি নারায়ণগঞ্জসহ ফতুল্লার সাংবাদিক ভাইদের সহযোগিতা পেয়েছি। নারায়ণগঞ্জ ও ফতুল্লার সাংবাদিক সম্পাদকসহ সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। সাংবাদিকের লেখনি শহীদের রক্তের চেয়েও পবিত্র । তাই আমার ভালো কাজগুলো তারা তুলে ধরবে এবং মন্দ ভুলগুলো ধরিয়ে দেয়ার জন্য আমি যোগদানের পরে সাংবাদিক ভাইদের কাছে জানিয়েছি। সুতরাং এলাকার গন্য মান্য ব্যক্তি ও জনপ্রতিনিধিসহ রাজনীতি ব্যক্তিদের সহায়তায় আমার থানার আইন শৃঙ্খলাসহ সকল পরিবেশ ঠিক রেখেছি।

থানাসূত্রে জানাযায়, ১২ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় ফতুল্লা মডেল থানার উদ্যোগে ফতুল্লার ৫টি ইউনিয়নে ৪২ জন গ্রাম পুলিশ কে পরিচয় পত্র দেয়া হয়। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ফতুল্লা মডেল থানার কর্নধর বার বার পুরস্কার প্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ মো.কামাল উদ্দিন ।

এ সভায় সভাপতিত্ব করেন, ফতুল্লা মডেল থানার ইন্সপেক্টর(অপারেশন) মজিবুর রহমান অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন, ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. শাহজালাল । তার রসালো উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি হিসেবে ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক রনজিৎ মোদক, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি নুরুল ইসলাম নুরু, ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক আনিসুজ্জামান অনু, গ্রাম পুলিশের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন কমান্ডার মোস্তফা কামাল, নিজাম উদ্দিন। অন্যান্য সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র সাংবাদিক মো. কামাল আহম্মেদ, পিয়ার চাঁন,ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক এ.আর.কুতুবে আলম,ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলিম লিটন, আজকের নারায়ণগঞ্জ নিউজ ডট কমের সম্পাদক মো.মহসীন আলম,সময় নারায়ণগঞ্জ ডট কমের পরিচালক সহিদুল ইসলাম সহিদ, নারায়ণগঞ্জ নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডট কমের সম্পাদক মনির হোসেন,এম.এ সুমন, সোনালী আক্তার,সৌরভ আল আমিন ও মুন্না প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here