নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানাধীন গাবতলী টাগাড়পাড় এলাকায় একটি মাছের খামার জোড় পূর্বক দখল এবং খামারের প্রকৃত মালিককে মারধরে অভিযোগ পাওয়া গেছে স্থানীয় মানিক মোক্তারসহ জনের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় খামারের মালিক মো: স্বপন বাদী হয়ে ৪ জনের নামউল্লেকসহ অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

মামলার বিবরনে বাদী উল্লেক করেন, আমি মোঃ স্বপন (২৩) মানিক (৩০), মুক্তার (২৮), ডালিয়া (২৬), ৪। মনি (২২) সহ আরও অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে এই মর্মে অডিযোেগ দায়ের করিতেছি যে, গাবতলী টাগার পাড়স্থ আমার একটি মাছের খামার উক্ত ১নং বিবাদী জোর পূর্বক দখল করিয়া উহাতে আমার অজ্ঞাতসারে মাছ চাষ করিয়াছে। আমি ১নং বিবাদীকে হেনকার্যকলাপের কারণ জিজ্ঞাসা করিলে এবং আমার বিনা অনুমতিতে আমার খামারে মাছ ছাড়ার কারণ জিজ্ঞাসা করিলে উক্ত ১ ও ২নং বিবাদীদ্বয় আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতঃ বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে। অতঃপর অদ্য ইং- ০৫/০৬/২০২০ তারিখ বেলা অনুমলি ১১.০০ ঘটিকার সময় আমি আমার উক্ত খামারের পাশে বসে থাকাবস্থায় উক্ত ১ ও ২নং বিবাদীয়ের ইন্দনে ও পরামর্শে অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জন বিবাদী মাছের খামারের আসে এবং মাছকে খাবার দিবে বলিয়া জানায়। আমি এতজনকে খামারে মা আসিয়া একজনকে আসিতে বলিলে অজ্ঞাতনামা বিবাদীগণ আমার উপর ক্ষিপ্ত হইয়া যায় এবং ১ ও ২নং বিবাদীদ্বয়কে খবর দিয়া আনে। উক্ত ১, ২, ৩ ও ৪নং বিবাদীগণ দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র, লােহার রড, ছুরি, চাকু ইত্যাদি সহকারে আসিয়া আমাকে খামারে পাইয়া অতর্কিতভাবে এলােপাথারী মারধর করিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। একপর্যায়ে উক্ত ১নং বিবাদী আমাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে তাহার হাতে থাকা চাকু দ্বারা কোপ মারিলে উক্ত কোপ আমার বাম চোখের নিচে লাগিয়া গুরুত্বর রক্তাক্ত কাটা জখম হয়। আমি আঘাত প্রাপ্ত হইয়া মাটিতে লুটাইয়া পরিলে ২ ও ৩নং বিবাদীদ্বয় সহ অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জন আমাকে এলােপাথারী কিল, ঘুষি ও লাথি মারিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। আমাকে মারধর করিতে দেখিয়া আমার চাচা শেখ ফরিদ (৫০), চাচী সাখী (৪৫) ও ঢাচাতাে বােন স্বণী (২৫) আগাইয়া আসিলে উক্ত বিবাদীগণ তাহাদেরকেও এলােপাথারী মারধর করিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। ২নং বিবাদী তাহার হাতে থাকা ছুরি স্বারা কোপ মারিয়া আমার চাচার বাম পায়ের আঙ্গুলে কাটা জখম করে। ১নং বিবাদী আমার চাচাতাে বােনের জামা কাপড় টানা হেচড়া করিয়া শ্লীলতাহানী ঘটায়। ৩নং বিবাদীনি আমার চাচীকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে তাহার হাত দ্বারা আমার চাচীর গলা চাপিয়া শ্বাসরােধ করার চেষ্টা করে। ৪নং বিবাদীনি আমার চাচাতাে বােনের তলপেটে এলোপাথারী কিল, ঘুষি ও লাথি মারিতে থাকে। এমতাবস্থায় আমাদের ডাক চিকারে আশপাশের লােকজন আগাইয়া আসিলে উক্ত বিবাদীগণ আমাদেরকে বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রস্নান করে এবং আরও বলে যে, এই ঘটনার বিষয়ে যদি কোন প্রকার বাড়াবাড়ি করিস কিংবা এই খামার তাের বলিয়া দাবী করিস তাহা হইলে আজ হােক কিংবা কাল হােক তােদেরকে জীবনে শেষ করিয়া ফেলাইবাে নতুবা যেকোন মিথ্যা মামলায় ফাসাইয়া দিব বলিয়া জানায়। অতঃপর লােকজন আমার গুরুত্বর অবস্থা দেখিয়া ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে নিয়া চিকিৎসা গ্রহন করায়। উক্ত বিবাদীগণ যেকোন সময় আমার ও আমার পরিবারের লােকজনের বড় ধরনের ক্ষতি সাধন করিতে পারে বলিয়া আমার আশঙ্কা হইতেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here