নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার অন্তর্গত শেয়াচর এলাকায় বৃদ্ধা আয়েশা আকতারে কাছে সন্ত্রাসীদের চাঁদা দাবী এবং চাঁদা দিতে না পরলে বৃদ্ধার নাতনীকে উঠিয়ে নিয়ে ধর্ষনের হুমকি প্রদান করায় ফতুল্লা থানায় লিখিত অভিযোগ হয়েছিলো গত ২৯ জুন। অভিযোগের ৫দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও এখ নপর্যন্ত অভিযুক্তরা গ্রেফতার না হওয়ায় এবং অভিযোগটি মামলা হিসেবে রেকর্ড না হওয়ায় আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে ভুক্তভোগী পরিবারটি। বিবাদিরা খুবই প্রভাবশালী হওয়ায় বাদীর পরিবারকে বিভিন্ন প্রকার ভয় ভীতি প্রদান করছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাই অবিলম্বে অভিযুক্ত সন্ত্রাসী ফয়সাল, রাসেল ও সাধুকে গ্রেফতার করে উপযুক্ত বিচারের দাবী জানিয়েছে স্থানীয়রা।

অবশ্য অভিযোগের তদন্ত চলমান আছে দাবী করে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ পরিদর্শক হুমায়ুন কবীর নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। অভিযোগের বাদী বিবাদী নিজেরা একে অপরের আত্মীয়। সামাজিকভাবে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা চলছে। যদি কোন প্রকার আপোষ মিমাংসা না হয় তাহলে মামলা রেকর্ড হবে ১০০ পারসেন্ট নিশ্চিত।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানাধীণ শেহাচর এলাকায় স্থানীয় সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এবং ক্রমাগত হুমকিতে দিশেহারা হয়ে গত ২৯ জুন সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন আয়েশা আকতার নামে ৭৫ বছরের এক বৃদ্ধা। বৃদ্ধার কাছে স্থানীয় সন্ত্রাসী ফয়সাল, রাসেল ও সাধু বিভিন্ন সময়ে চাঁদা দাবী করে এবং দাবীকৃত টাকা না পেয়ে বৃদ্ধার নাতনীকে ধর্ষণের হুমকি প্রদান করে। তাই বাধ্য হয়ে তিন সন্ত্রাসীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো জ্জ জনকে আসামী করে ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

অভিযোগে বাদী আয়েশা আকতার উল্লেখ করেন, ফতুল্লার শেহারচর গণি হাজী বাড়ীর মোড়, (জামাল হাঙ্গীর বাড়ী) নিবাসী ফয়সাল (৩৬), রাসেল (২৬) ও সাধু (২৫)সহ অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জন গত ২০/০৬/২০১০ইং আনুমানিক সকাল নয়টার সময় একই এলাকার রিক্সা ড্রাইভার লাভলু সাথে রিক্সা মেরামতের কথাবার্তাকে কেন্দ্র করিষ্যা ঝগড়া বিবাদ হয়। আমার পরিবার সহ উক্ত ১নং বিবাদীর বাসায় বসবাস করে আসছে। পরবর্তীতে ১নং বিবাদী আমাকে বলে আপনার মেয়ের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ আছে। তারপর উপরোক্ত বিষয়টি নিয়ে ১-৩ বিবাদীরা আসিয়া বলে আপনার মেয়ের জামাইয়ের বিরুদ্ধে যে অভিযােগ আছে সেটা উঠিয়ে দিবে বলিয়া নগদ ২০,০০০/- (বিশ হাজার) টাকা নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়। ১নং বিবাদীর কাছে অভিযোগটি উঠিয়েছে কিনা জানতে চাইলে সে আমাকে বলে আপনার মেয়ের জামাইয়ের বিরুদ্ধে অভিয়োগ উঠাতে হলে আরো ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার) টাকা দিতে হবে বলে হুমকি প্রদান করে। আর যদি না দেই তাহলে যেকোন বড় ধরনের ক্ষতি সাধন করবে বলিয়া হুমকি দেয়। এই বিষয় নিয়ে যদি বেশি বাড়াবাড়ি করেন তাহলে আপনাদের খবর আছে মর্মে হুমকি প্রদান করে।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, গত ২২/০৬/২০২০ ইং তারিখ ১নং বিবাদীর ব্যবহৃত ০১৬২৬-১০৭৭৯৯ নাম্বার ফোন করিয়া বললে সে আমাকে বলে তার মেয়ের জামাইকে বাঁচাতে চাইলে আরো ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার) টাকা দিবি আর না দিলে নতুন করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করবে বলিয়া হুমকি ধামকি প্রদান করে। আরো বলে তার নাতীনকে বাসা অথবা রাস্তা পেলে শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণ করবে বলিয়া উপস্থিত লোকজনের সম্মুখে হুমকি ধামকি প্রদান করে। গত ২৭/০৬/২০২০ ইং তারিখে অনুমান দুপুর ১.৩০ ঘটিকার সময় আমার রুমের সামনে আসিয়া ১-৩নং বিবাদী বলে তোর নাতীনকে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করবে বলিয়া হুমকি প্রদান করে। আরো বলে তোরা আমার কিছুই করতে পারবি না বলিয়া হুমকি দেয়। বিবাদীদের এই ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা ও বিভিন্ন ধরনের প্রাণ নাশের হুমকি ধামকি সহ আমার নাতীনকে ধর্ষণ করবে হুমকিতে আমি ও আমার পরিবার নিরাপত্তা হীনতায় ভুগতেছি বিধায় থানায় আসিয়া অভিযােগ দায়ের করিতে বিলম্ব হইল। অতএব, জনাবের কাছে প্রার্থনা উপরে উল্লেখিত ঘটনা মর্মে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করিতে জনাবের সু-মর্জি হয়।

এদিকে এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ফতুল্লার শেহাচর তক্কার মাঠ এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ফয়সাল বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। এলাকায় চুরি, ছিনতাইসহ মাদক ব্যবসা পরিচালনার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। তাছাড়া স্থানীয় মেয়েদের ইভ টিজিংসহ নানা অপরাধ কর্মের সাথে তারা জড়িত। কিশোর গ্যাং গঠন করে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে তারা। তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে চাইলে মামলা হামলার ভয় দেখিয়ে চুপ করিয়ে রাখা হয় বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। তাই এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here