নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নগরীর গলাচিপায় চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী বন্দুক শাহীনের আস্তানায় মাদক বিরোধী যৌথ অভিযান চালিয়ে নারীসহ ১৩ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছেন। পরে আটককৃতদের মধ্যে ৭ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড এবং ৪ জনকে অর্থদন্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যামান আদালত।
শনিবার (১৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় গলাচিপা এলাকায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন, সদর মডেল থানা, ফতুল্লা মডেল থানা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের প্রায় শতাধিক সদস্য এই যৌথ অভিযানে পরিচালনা করেন। অভিযান চলাকালীন সময়ে পুলিশ সদস্যদের উপড় চড়াও হন মাদক ব্যবসায়ীরা। এরপর আটককৃতদের রাতে সদর মডেল থানায় নিয়ে এসে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে ১১ জনকে অর্থ ও কারাদন্ড দন্ড প্রদান করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জ্যোতি বিকাশ চন্দ্র ও জাহাঙ্গীর আলম।
রাত পৌনে ১২ টায় দন্ডপ্রাপ্তদের নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে প্রেরণের পর সদর মডেল থানায় সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) মো: শরফুদ্দীন সাংবাদিকদের জানান, গলাচিপা বন্দুক শাহীনের আস্তানায় মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ১৩ জনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৭ জনকে ৬ মাস করে কারাদন্ড, ৪ জনকে অর্থদন্ড এবং ২ জনকে নিয়মিত মাদক মামলা দেয়া হয়েছে।
কারাদন্ড প্রাপ্তরা হলেন, গলাচিপা কলেজ রোড এলাকার মৃত কামাল মিয়ার পুত্র মোঃ সোহেল (২৭), পশ্চিম দেওভোগ এলাকার আলাউদ্দিনের পুত্র মো: সালাউদ্দিন (৩০) ও মো: রকি (২৫), মৃত এনায়েত আলীর পুত্র মোঃ মনির হোসেন মরন (৬৫), ২৬২/৩,পশ্চিম দেওভোগ এলাকার মৃত নিয়ত আলীর পুত্র মোঃ খোকন মিয়া (৩৭), শহরের আব্দুল মজিদেও পুত্র শহিদুল (২০) এবং মৃত মোজাম্মেলের পুত্র মো: খলিলুর রহমান (৩০)।
নগদ ৫ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড প্রাপ্তরা হলেন, পশ্চিম দেওভোগ এলাকার মো: আলাউদ্দিনের মেয়ে মোসাম্মৎ রোকসানা আক্তার (২০) ও তার ভাই মো: রানা (২৩), মান্নানের স্ত্রী আফসানা আক্তার লিপি (২৫) এবং ইলিয়াস মাতবরের পুত্র মো: হৃদয় (২০)।
এছাড়া আটক আরো দুই মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করেছে পুলিশ। এরা হলেন, মাসদাইর এলাকার মৃত সুরুজ মিয়ার পুত্র মো: জাবেদ (৪৫) ও ১৫২/১ গলাচিপা কলেজরোড এলাকার মজিবুর রহমানের পুত্র মাহেরমজান (২৮)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here