নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতাদের কাপুরুষ আখ্যা দিয়ে শামীম ওসমান বলেছেন, ‘জ্বালাও পোড়াও রাজনীতি করার সময় তাদের শক্তি বেড়ে যায়, অথচ শহরে হকার ইস্যু নিয়ে বিগত দিনগুলোতে বিএনপি’র কোন নেতাকর্মীকে এগিয়ে আসতে দেখি নাই। পুলিশের লাঠির বাড়ি খাওয়ার ভয়ে যদি নিরীহ মানুষের জন্য রাজপথে নামতে আপনারা ভয় পান, তাহলে এমন কাপুরুষের মত আর রাজনীতি করার দরকার নেই।’
সোমবার (১৫ জানুয়ারী) বিকেল ৪ টায় নগরীর চাষাড়াস্থ সিটি মাকের্টের সামনে নারায়ণগঞ্জ হকার্স সংগ্রাম পরিষদ আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এই কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেন, ‘২৫ দিন চুপ ছিলাম, ভেবেছিলাম শহরে এমন বহু রাজনীতিবীদ, ব্যবসায়ী আছে, তারা হয়তোবা হকারদের এই সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসবেন। কিন্তু (সোমবার) পর্যন্ত কাউকেই আমি সমস্যাটি সমাধানে এগিয়ে আসতে দেখিনি। উল্টো বিষয়টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার পায়তারা চলছে। আমার বড় ভাই সেলিম ওসমান বিষয়টির সমাধানে মেয়রের কাছে চিঠি দিলেন। কীভাবে এবং কোথায় হকারদের অস্থায়ী ভাবে আপাতত বসানো যায়। চিঠির জবাব সাথে সাথে এলো, “না”। এর কারণ কি? হকারদের অপরাধ একটাই, তারা ব্যবসা করে খায়, ইয়াবা বেচে খায়না। যারা ইয়াবা বেঁচে খায়, সমাজে তাদের প্রভাব বেশি। যদিও বামপন্থী নেতারা হকারদের পাশে এসে দাড়িয়েছে। তাদের তেমন শক্তি সামর্থ না থাকলেও হকারদের পূনর্বাসনে তারা লড়াই সংগ্রাম করে যাচ্ছে। তাই আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই, সালাম জানাই।’

তিনি বলেন, ‘পত্রিকায় দেখলাম, হকার্স মার্কেটের দোকান গুলো নাকী ৬/৭ লাখ টাকা করে বিক্রি করা হয়েছে। ওই মার্কেটে তো প্রায় ৭’শ দোকান আছে। তাহলে এতো দোকান বিক্রি করলে তো কয়েকশ কোটি টাকা হয়। যারা দোকান বরাদ্দ দিয়েছিলেন, নারায়ণগঞ্জবাসী তাদের কাছে জানতে চায়, ওই টাকা নিল কারা। কোথায় হলো এতো টাকার লেনদেন।’

নারায়ণগঞ্জ হকার্স সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মো: আসাদুল ইসলাম আসাদের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন, সিপিবি জেলা সভাপতি কমরেড হাফিজুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, যুগ্ম সম্পাদক শাহ্ নিজাম, শহর যুবলীগ সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছা সেবকলীগ সভাপতি জুয়েল আহম্মেদ, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মেখ সাফায়েত আলম সানী, মহানগর ছাত্রলীগ আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান রিয়াদ, মহানগর হকার্সলীগ সভাপতি আব্দুর রহিম মুন্সী প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here