নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: অব্যাহতভাবে দখল ও দূষণের শিকারে বিপন্ন হয়ে পড়েছে শিল্প সমৃদ্ধ প্রাচ্যের ডান্ডি খ্যাত নদী শীতলক্ষ্যা। প্রভাবশালীদের অবৈধ দখলে ছোট হয়ে গেছে নদীর চারপাশ। উচ্ছেদ অভিযান কিংবা জরিমানা করেও রোধ করা যাচ্ছনা শীতলক্ষ্যার দখল দূষণ রোধ।
তবে শীতলক্ষ্যা নদী দখলমুক্ত করতে মাঝে মধ্যে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু অভিযান শেষ করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আবার আগের অবস্থায় ফিরে যায়। বর্জ্য ব্যবস্থার অব্যবস্থাপনার কারণে নদীর পানি দূষিত হচ্ছে। কলকারখানার রাসায়নিক দ্রব্য ও বর্জ্যে পানি দূষিত হয়ে বিপজ্জনক মাত্রায় পৌঁছে গেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকার চারপাশের নদ-নদীগুলোর দখল-দূষণ মুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া সত্ত্বেও তা কাজে আসছে না। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নথিপত্রে শীতলক্ষ্যা নদীর দখল-দূষণমুক্ত করতে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়নের ফিরিস্তি থাকলেও বাস্তবতা ভিন্ন।

নদী বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এভাবে চলতে থাকলে অদূর ভবিষ্যতে শীতলক্ষ্যা নদী একদিন খালে পরিনত হবে।

শীতলক্ষ্যার কাঁচপুর থেকে নারায়ণগঞ্জ পর্যন্ত ৩ দশমিক ৫৭ মাইলের মধ্যে দখল হয়েছে ২৩ দশমিক ৮৩ একর। প্রভাবশালী ও রাজনৈতিক মদদপুষ্ট বিভিন্ন গোষ্ঠীর নদী দখল এবং দখল করা জায়গায় গড়ে উঠেছে শিল্প-কারখানা ও প্রতিনিয়ত তার পানিতে পড়ছে বর্জ্য। যেই বর্জ্যে দিনের পর দিন বিপন্ন হয়ে পড়েছে এই নদী। এখন আর এই নদীতে জেলেরা জাল ফেললে মাছও পায়না। নদীর পানি এতটাই দূর্গন্ধ যুক্ত যে, এখানে গোসল করলে শরীরে চর্ম রোগ দেখা দেয়। আর নৌপথে চলাচলের সময় নাক ঢেকে রাখতে হয় যাত্রীদের।

পরিবেশ অধিদফতর, বিআইডব্লিউটিএ, নাসিকসহ সরকারী বিভিন্ন সংস্থা কয়েক দফা অভিযান চালিয়েছে, উচ্ছেদ করা হয়েছে দখলবাজদের ছোট-বড় সাড়ে আট হাজার অবৈধ স্থাপনা। মামলা, জরিমানাসহ নানা রকম শাস্তিও দেওয়া হয়েছে দখলবাজদের। কিন্তু ঠেকানো যাচ্ছে না দখল ও দূষণ।

নদী তীরবর্তী স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, স্থানীয় পর্যায়ের ভূমি অফিসের কিছুসংখ্যক অসৎ কর্মচারীর যোগসাজশে ইদানীং প্রভাবশালীরা নদীর জায়গার ভুয়া কাগজপত্রও বানিয়ে নিচ্ছে, তৈরি করছে জাল দলিল-দস্তাবেজও। এসব ভুয়া জাল কাগজপত্রকে সম্বল করেই নানা রকম মামলা ঠুকে দীর্ঘসূত্রতা সৃষ্টি, স্থানীয় থানা পুলিশকে নিজেদের পক্ষে রাখার মাধ্যমে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের দ্বারা দখল করে নিচ্ছে নদীর সীমানা।

আর এ অবস্থাতেই বুধবার (১৪ মার্চ) পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নদী রক্ষা দিবস। এদিন সকাল সাড়ে ১০ টায় সেন্ট্রাল খেয়াঘাটের সামনে বাপার উদ্যোগে বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here