নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-মুন্সীগঞ্জ মহাসড়কের পঞ্চবটি থেকে মুক্তারপুর অংশে যানজট তীব্র আকার ধারন করেছে। আর এতে করে দূর্ভোগ চরমে উঠেছে বিসিক শিল্পাঞ্চলের মালিক-শ্রমিকসহ মুন্সিগঞ্জগামী যাত্রীসাধারনের। সেই সাথে শিল্প প্রধাণ এই এলাকার ব্যবসায়ীদের পণ্য সঠিক সময়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে না পেরে শিল্প মালিক ও সাধারণ ব্যবসায়ীরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীণ হচ্ছেন বলেও জানা গেছে। আর তাই গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটির যানজট নিরসনে আশু পদক্ষেপ দাবী করেছেন তারা।

জানা যায়, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-মুন্সিগঞ্জ মহাসড়কটির পঞ্চবটি থেকে মুক্তারপুর অংশ দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য যানবাহন যাতায়াত করে। বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যানের পাশাপাশি রিকসা, ভ্যান গাড়ি ও ইজিবাইকের মতো যানবাহনও দুই লেনের এই ছোট সড়কটি দিয়ে নিয়মিত চলাচল করছে। তাছাড়া বিসিক শিল্প নগরীর প্রায় ১২০০ মিল ফ্যাক্টরীর লক্ষাধীক শ্রমিকের পথচলাও এই একটি সড়ককে কেন্দ্র করে। আর এ বিশাল চাপ সামলে যানবাহনসহ মানুষের পথচলা নির্বিঘœ করতে নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক বিভাগের প্রয়োজনীয় তৎপরতার অভাবে ব্যস্ত এই সড়কে যানজট যেনো নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাড়িয়েছে। হাজার হাজার মানুষের নিদারুণ এই দূর্ভোগ থেকে মুক্তির জন্য তাই নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ আলহাজ¦ একেএম শামীম ওসমানের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগি জনগন।

সরেজমিনে বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) গিয়ে দেখা যায়, মুন্সীগঞ্জ জেলা থেকে প্রতিদিন আলুসহ প্রায় সব ধরনের সবজি নিয়ে ২০০-৩০০ শ’ ট্রাক এ রুটে চলাচল করে। যানজটের কবলে সঠিক সময়ে কাঁচামাল বোঝাই শত শত ট্রাক যনজটের কবলে পরে সঠিক সময়ে পৌঁছতে পারছে না। তাছাড়া বিসিক শিল্পাঞ্চলের তৈরী পোষাক ও কাঁচামাল পরিবহনে সময় নষ্ট হওয়ার প্রভাব পরছে শিপমেন্টের সময়। আর এসব ফ্যাক্টরীর বিদেশী বায়াররা যানজটের কারনে অর্ডার কমিয়ে দিচ্ছে। ফলে ক্ষতির সম্মুখীণ হচ্ছে বৃহৎ এই শিল্পের সাথে জড়িত ব্যবসায়ীরা।

এ বিষয়ে বিসিকের জনৈক শিল্প মালিক অভিযোগের সুরে বলেন, বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বৈদেশীক আয় আসে নীট শিল্প থেকে। যার বেশীলভাগই রপ্তানী হয় এই বিসিক থেকে। অথচ এই বিসিকের অবকাঠামো ব্যবস্থাপনায় কখনো নজর দেয়নি প্রশাসন। বিসিকের ভিতরের সড়কগুলো ভাঙ্গা। সামান্য বৃষ্টিতে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পরে। আর যানজটের কারনে পঞ্চবটি থেকে মোক্তারপুর সড়ক পার হয়ে বিসিকে আসতে সময় লাগে প্রায় এক ঘন্টা। দুই দশক আগের পরিকল্পনা অনুযায়ী নির্মাণ করা সড়কটি আজও একমুখী অবস্থায় রয়েছে। সড়কটি প্রসস্ত করে মাঝে সড়ক দ্বীপ তৈরী করে কয়েক দফা সংস্কার কাজের পরিকল্পনা নিয়েও বাস্তবায়ন করা হয়নি। তাই পঞ্চবটি-মুক্তারপুর সড়কের যানজট নিরসন ও বিসিকের অভ্যন্তরের রাস্তাগুলি পুন:নির্মাণসহ বিসিক শিল্পাঞ্চলের সামগ্রিক অবকাঠামো আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করতে আমরা স্থানীয় সাংসদ একেএম শামীম ওসমানের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

এ বিষয়ে সেখানে দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্রাফিক ইন্সপেক্টর জিয়াউল হক নিউজ প্রাচ্যেও ডান্ডিকে বলেন, ভাংঙ্গা চোরা রাস্তা আর স্লো গাড়িগুলো রানিং গাড়ির সাথে সমানতালে চলায় এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে নারায়ণগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) আবদুর রশিদের মুঠোফোনে কল করা হলেও তিনি কলটি রিসিভ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here