নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, বন্দর প্রতিনিধি: প্রেম করে বিয়ে করেও শেষ রক্ষা হলোনা প্রেমিক যুগলের। অবশেষে গ্রাম্য পঞ্চায়েত কমিটির নির্দেশক্রমে অসহায় প্রেমিকার পিতা বাবলু চন্দ্র দাস বাদী হয়ে প্রেমিককে আসামী করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে।
এ ঘটনায় পুলিশ গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বন্দর বাবুপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে বন্দর র্গালস স্কুলের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী রিয়া রানী দাস (১৪)কে উদ্ধারসহ প্রেমিক সঞ্জয় দাস(২৮)কে আটক করেছে। যার মামলা নং- ৪৪(১১)১৭ ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সং/০৩) এর ৭/৩০।

জানা গেছে, বন্দর থানার সোনাকান্দা এনায়েতনগরস্থ ঋষিপাড়া এলাকার অর্জুন দাসের ছেলে সঞ্জয় দাসের সাথে একই এলাকার বাবুল চন্দ্র দাসের মেয়ে বন্দর র্গালস স্কুলের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী রিয়া রানী দাসের সাথে র্দীঘ দিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠৈ। সম্প্রতি সময়ে প্রেমের টানে প্রেমিক যোগল ঘর থেকে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে। মেয়ের বয়স কম থাকায় এ বিয়ে নিয়ে উক্ত এলাকায় বহু নাটকিয়তা দেখা দেয়।

পরে স্থানীয় পঞ্চয়েতের মাধ্যমে ছেলে পক্ষ ও মেয়ে পক্ষকে ডেকে এনে এই বিয়ে বন্ধ করার জন্য নির্দেশ দেয়। এতে প্রমিক মেনে না নিয়ে গত ১৪ নভেম্বর বিকেল ৫টায় পুনরায় প্রেমিকা রিয়া রানীকে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়।

এ ব্যাপারে স্থানীয় পঞ্চায়েতের চাপে পরে অসহায় প্রেমিকা রিয়া রানীর পিতা বাবুল চন্দ্র দাস বাদী হয়ে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করলে বন্দর ফাঁড়ীর এসআই অজয় কুমার পালসহ সঙ্গীয় র্ফোস বৃহস্পতিবার রাতে বন্দর বাবুপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধারসহ প্রেমিককে আটক করে।

এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত উদ্ধারকৃত স্কুলছাত্রী পুলিশ হেফাজতে রেখে ধৃত প্রেমিক সঞ্জয় দাসকে উক্ত মামলায় শুক্রবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here