নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: পহেলা বৈশাখ। বাঙালি সংস্কৃতির অনন্য এক উৎসব। বাংলা নতুন বছর ১৪২৪ শুরু হতে বাকি আর মাত্র কয়েকদিন। শুধু সংস্কৃতি নয়, এই উৎসবকে ঘিরে ব্যস্ততা বেড়েছে নগরীতে। বৈশাখ ঘিরে চলছে জমজমাট প্রস্তুতি। নগরীর শপিংমল গুলো থেকে শুরু করে ফুটপাতগুলোতে কেনাকাটায় ধুম লেগেছে। আর দোকানগুলোও সেজে উঠেছে বাহারী রঙ ও ডিজাইনের বৈশাখী পোষাকে। পরিবার পরিজনসহ নানা রঙের নতুন পোশাকে নিজেকে সাজাতে ভিড় বাড়ছে ক্রেতার।

নববর্ষের সাজে বাঙালির চিরায়ত সাজ থাকলেও প্রতি বছর স্টাইলে খানিকটা পরিবর্তন আসে। আর এই সুযোগে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে বাহারি ডিজাইনের বৈশাখী পণ্যে সাজিয়ে রেখেছেন ব্যবসায়ীরাও।

সোমবার (১০ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জের কয়েকটি শপিংমলে দেখা যায় পাঞ্জাবি, শাড়ি, কুর্তা, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া ও ছোটদের বাহারি রঙের পোশাকে সাজানো সব দোকান। তরুণীরা শাড়ি এবং সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে মিলিয়ে কিনছেন গহনা। পোশাকের পাশাপাশি বিক্রি হচ্ছে মাটির পুতুল, হাঁড়ি-পাতিল, ঢোল, মুখোশ ইত্যাদি। শপিংমল কিংবা মার্কেটের পাশাপাশি এসব দেশজ পণ্য পাওয়া যাচ্ছে মেলা এবং ফুটপাতে।

নগরীর চাষাঢ়া, ডিআইটির শপিং মলগুলোতে বেশীরভাগই উচ্চবিত্ত ক্রেতাদের ভীর। পরিবার পরিজন নিয়ে নিয়ে তারা বিভিন্ন দোকানে ঘুরে বেড়াচ্ছেন আর বৈশাখের জন্য কিনছেন পছন্দসই পোষাক।

অপরদিকে নগরীর চাষাঢ়া হকার্স মার্কেট ও ফুটপাতগুলোতে দেখা মিলে নি¤œ আয়ের মানুষদের। তারাও তাদেও সাধ্যমতো পরিবারের মানুষদেও জন্য কেনার চেষ্টা করছেন বৈশাখী পোষাক। আর ফুটপাতের দোকানগুলোতেও শোভা পাচ্ছে রঙ বেরঙের বাহারী সব বৈশাখী পোষাক।

পহেলা বৈশাখ সামনে রেখে লোকে যে কেবল নতুন কাপড়ই কিনছেন তা নয়, মুঠোফোনসহ নানা ধরনের ইলেকট্রনিক সামগ্রীও বেচাকেনা হচ্ছে। এমনকি ঘরবাড়ি সাজানোর জন্যও অনেকে কেনাকাটা করছেন। ফলে বেচাকেনা জমে উঠেছে বিপণিবিতানগুলোতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here