নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বাংলাদেশ হোসিয়ারী এসোসিয়েশনের নবাগত সভাপতি হিসেবে আজ দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত সভাপতি মো: আতাউর রহমানসহ (২০১৭-১৯ইং) নতুন কমিটি।
সোমবার (১৭ এপ্রিল) বিকেল ৩টায় নগরীর মিশনপাড়া এলাকায় হোসিয়ারী কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত সাধারন সভা শেষে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন নতুন কমিটির নেতৃবন্দরা।
কমিটির অন্যান্যরা হলেন, সহ-সভাপতি  (জেনারেল) মো: কবির হোসেন, (এসোসিয়েট) মো: নাছির শেখ, পরিচালক (জেনারেল গ্রুপ) নাজমুল আলম সজল, হাজী আলী আহম্মদ শেখ, আব্দুল হাই, মনির শেখ, আতাউর রহমান, সুশান্ত পাল চৌধুরী, সাব্বির আহম্মেদ সাগর, বেদিনাথ পোদ্দার, আমির উল্লাহ রতন, সাখাওয়াত হোসেন সুমন, (এসোসিয়েট গ্রুপ) নাসিম আহম্মেদ, আদিল হাওলাদার, আতাউর রহমান, শাহীন হোসেন, সফিউদ্দিন সোহেল।
গত ২০ মার্চ এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন আরিফ আলম দিপু, সদস্য শামীম আহম্মেদ, হুমায়ুন খান কবির শিল্পী। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন, জিএম ফারুক, সদস্য এড. মাসুদ উর রউফ, ফারুক বিন ইউসুফ পাপ্পু।
জানাগেছে, বাংলাদেশ হোসিয়ারী এসোসিয়েশনের নবাগত সভাপতি মো: আতাউর রহমান ১৯৬৯ সালের ১ জুলাই উত্তর কাশীপুর এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা হাজী নুরুল ইসলাম একজন জনপ্রতিনিধি ছিলেন। আতাউর রহমান ১৯৮৪ সালে দেওভোগ হাজী উজির আলী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় কৃতকার্য হন। এরপর সরকারী তোলারাম কলেজ থেকে ১৯৮৬ সালে এইচএসসি, ১৯৮৯ সালে বিএসসি পাশ করেন।
লেখাপড়া শেষ করে আতাউর রহমান এরপর স্বপ্নের দেশ জাপানে পাড়ি জমান। দীর্ঘদিন প্রবাসী জীবন কাটানোর পর দেশে ফিরে পিতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নুরুল ইসলাম হোসিয়ারীর হাল ধরেন। হোসিয়ারী ব্যবসায় ধীরে ধীরে সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখদে রাখতে তিনি গার্মেন্টস ব্যবসা শুরু করেন। বিসিক শিল্প নগরীতে গড়ে তোলেন ফোর ডিজাইন নামে গামেন্টস শিল্প প্রতিষ্ঠান। ব্যাক্তি জীবনে তিনি তিন কণ্যা সন্তানের জনক।
বাংলাদেশ হোসিয়ারী সমিতির নবাগত সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়ে হোসিয়ারী ব্যবসায়ী ও শ্রমিকদের স্বার্থে কাজ করার প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন মো: আতাউর রহমান।
তিনি নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, প্রাচ্যের ডান্ডি খ্যাত নারায়ণগঞ্জের হোসিয়ারী শিল্পে সবচেয়ে বেশী সেন্টু গেঞ্জী উৎপাদিত হয়। যা তৈরীতে ভারত থেকে আমদানীকৃত (৪০ পার্সেন্ট) সূতা ব্যবহার করা হয়। কিন্তু ভারত থেকে এই সূতা আমদানীতে শুল্ক কর দিতে গিয়ে তেমন লাভবান হতে পারেন না ব্যবসায়ীরা। তাই আমার ব্যবসায়ীক নেতা বিকেএমইএ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিম ওসমান যদি সরকারের সাথে আলোচনা করে শুল্কমুক্ত সুবিধায় হোসিয়ারী ব্যবসায়ীদের ভারত থেকে গেঞ্জী প্রস্তুতের সূতা আমদানী করার সুযোগ করে দেন তাহলে ব্যবসায়ীরা অনেক উপকৃত হবেন। আমি চেষ্টা করবো সেলিম ওসমানের সাথে আলোচনা করে হোসিয়ারী ব্যবসায়ীদের সকল সমস্যা সমাধানের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here