নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, আড়াইহাজার প্রতিনিধি: আড়াইহাজার উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা শিল্পপতি লাক মিয়াকে চেক প্রতারণার অভিযোগে দায়ের হওয়া একটি মামলায় তিন কোটি টাকা ৬০ লাখ টাকা জরিমানা ও ১ বছরের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেছেন ঢাকার একটি আদালত।

বৃহস্পতিবার বিকেলে (৫অক্টোবর) ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা এ রায় দিয়েছেন। রায়ের সময় আসামী লাক মিয়া আদালতে অনুপস্থিত থাকায় বিচারক তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছেন। রায়ের বিষয়টি আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিডিউর কে এম সাজ্জাদুল হক শিহাব নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, সালমা ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী ও ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লাক মিয়া ঢাকা সূত্রাপুর থানার ইরফান রতর স্পিনিং মিলস্ লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সাথে ৬ কোটি টাকার সুতা লেনদেন করে। এর মধ্যে ২ কোটি ৬০ লাখ টাকা নগদ পরিশোধ করে বাকি ৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা পরিশোধের জন্য লাক মিয়া ২০১১ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের একটি চেক দেন ইরফান রতর স্পিনিং মিলস্ লিমিটেডকে।

চেকটি ২০১১ সালের ১৪ জুন ব্যাংকে জমা দেয়ার পর প্রর্যাপ্ত তহবিলের কারণে প্রত্যাখাত হয়ে যায়। ১৪ জুলাই ইরফান রতর স্পিনিং মিলস্ লিঃ এর চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইসলামউদ্দিন সালমা ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী লাক মিয়াকে টাকা প্রদানের জন্য এক মাসের সময় দিয়ে লিগ্যাল নোটিশ দেন। ওই দিন লিগ্যাল নোটিশ গ্রহণ করলেও তিনি নির্ধারিত সময়ে টাকা পরিশোধের ব্যর্থ হন।

১৪ আগস্ট ইরফান রতর স্পিনিং মিলস্ লিঃ পক্ষে হিসাব ব্যবস্থাপক সাহেদ আলম সিদ্দিকী বাদী হয়ে লাক মিয়ার বিরুদ্ধে নিগোসিয়েবল ইনস্ট্রুমেন্টস অ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারায় আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৩০১৭/১২ইং।

আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন এবং সাক্ষ্যগ্রহণের পর আদালত বৃহস্পতিবার ইউপি চেয়ারম্যান লাক মিয়াকে এক বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং তাকে তিন কোটি ৬০ লাখ টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে ২০ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে এবং বাকী টাকা বাদী পক্ষকে প্রদানের নির্দেশ প্রদান করেন বিচারক।

রায়ের সময় আসামী লাক মিয়া অনুপস্থিত থাকায় আদালত তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন। রায়ের বিষয়টি উক্ত আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিডিউর সাজ্জাদুল হক শিহাব নিশ্চিত করেছেন।

একটি সূত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান লাক মিয়া নরসিংদীর মাধবদী এলাকায় তার দ্বিতীয় স্ত্রীর ভাইকে হত্যা করার অভিযোগে ওই মামলার আসামি। এ মামলায় তিনি হাইকোট থেকে জামিনে রয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here