নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: কর্মীদের উদ্বুদ্ধ করতে মুখে ভাষণের মাধ্যমে বেশ সাহসী মনোভাব ব্যক্ত করলেও বাস্তবে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রামের ক্ষেত্রে ক্রমশই ভীত হয়ে পড়ছে মহানগর বিএনপি।
সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি দলীয় কর্মসূচী পালনের ক্ষেত্রে এমটাই পরিলক্ষিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

যেখানে দেখাগেছে, ঘরের মধ্যে মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালাম, সাধারন সম্পাদক এটিএম কামালসহ শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দরা হামলা মামলার ভয়কে উপেক্ষা করে নেতাকর্মীদের আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে থাকতে সাহসী ভাষণ দিয়ে থাকলেও খোদ তারাই পুলিশের ভয়ে রাজপথে দলীয় কর্মসূচী পালনে কখনো ভয়ে রাজপথের পরিবর্তে ঘরেই পালন করছে, আবার কখনো বা রাজপথে গিয়ে পুলিশের অনুমতি নিলেও সেখানে মহানগর বিএনপির আংশিক কমিটির অধিকাংশ নেতাই অনুপস্থিত থাকছে।

সর্বশেষ দেখাগেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে গত ৩ ডিসেম্বর সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে হাতেগোনা স্বল্প সংখ্যক নেতা নিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করতে আসার কারনেই পুলিশের বাঁধার মুখে পড়তে হয়েছিল মহানগর বিএনপিকে।

কারন, তাদের বিক্ষোভ সমাবেশে যতজন না নেতা উপস্থিত ছিলেন, তার চেয়ে বেশী ছিল পুলিশ। যার ফলে বিক্ষোভ সমাবেশ করতে এসে পুলিশের বাঁধার সম্মুখীন হতে হয় মহানগর বিএনপির নেতাদের।

আর তন্মধ্যে মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল সদর মডেল থানার ওসি মীর শাহীন শাহ্ পারভেজের সাথে শান্তিপূর্ণ সমাবেশের কথা বলে অনুমতি নিলেও সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপুকে বার বার ব্যানার দিতে তাগাদা দেয়া সত্ত্বেও টিপু ভয়ে ব্যানার দিতে দেরী করায় এবং সভাপতি এড. আবুল কালাম পুলিশী ঝামেলা এড়াতে সমাবেশের শেষ সময়ে এসে যোগদান করেই সমাবেশের সমাপনী ঘোষণা করায় আগামীতে সরকার বিরোধী আন্দোলনে মহানগর বিএনপির ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেন তৃণমূণ নেতৃবৃন্দ।

এরপর গত ১০ ডিসেম্বর বিশ^ মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে কেন্দ্রীয় বিএনপি মানববন্ধন কর্মসূচী পালনের আহ্বান জানালেও নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি তা দলের অস্থায়ী কার্যালয়ের এসি রুমে বসে পালন করে।

আর বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি ও দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে ১৩ ডিসেম্বর সারাদেশে কেন্দ্রীয় বিএনপি বিক্ষোভ কর্মসূচীর আহ্বান করলেও পুলিশের মনোভাবের উপর নির্ভর করেই রাজপথে সেই কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্ত নিবেন বলে মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল জানান।

কারন হিসেবে তিনি বলেন, ‘পুলিশের মনতো হলো বর্ষাকালের আকাশের মতো, ক্ষণে ক্ষনে তাদের মত পাল্টায়। তাই পুলিশের অনুমতি সাপেক্ষেই রাজপথে আমরা দলীয় কর্মসূচী পালন করবো।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here