নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সাংসদ শামীম ওসমানের হুংকারসহ প্রশাসনের সাথে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীরা বন্দুক যুদ্ধে মারা যাওয়ার পরেও ফতুল্লা মডেল থানাধীন কাশীপুর ইউনিয়নের ভোলাইল এলাকায় একটি রিক্সার গ্যারেজে বীরদর্পে চলছে তিন বন্ধুর মাদক ব্যবসা।

এরা হলেন, উক্ত এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের পুত্র আমজাদ ওরফে ফেন্সি আমজাদ, মৃত মোহর আলীর পুত্র মামুন এবং খাদুন বেপারীর পুত্র তাহের।

আর তাদের মাদক বিক্রির কেন্দ্রস্থ হচ্ছে ভোলাইলের সিরাজ ও বিল্লালের রিক্সার গ্যারেজ। ইয়াবা, গাঁজা, ফেন্সিডিলসহ কি চাই, যেন মাদকের সকল পদই পাওয়া যায় এখানে।

অভিযোগ রয়েছে, ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় কয়েকজন প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ এবং কতিপয় পুলিশ কর্তাদের ম্যানেজ করেই নাকি তিন বন্ধু মিলে এখানে অনায়াসে চালাচ্ছেন মাদকের ব্যবসা।

সন্ধ্যার পর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত মাদকসেবীদের আনাগোনায় মুখর থাকে রিক্সার গ্যারেজসহ তৎসংলগ্ন অলিগলি।

স্থানীয়রা জানান, এখানকার মাদক ব্যবসার মূল হোতা ফেন্সি আমজাদ এক সময় সেভেন মার্ডারের প্রধান আসামী নূর হোসেনের মাদক বেচাকেনা করতো। কিন্তু নূর হোসেনের মাদকের সামাজ্য ধ্বংস হওয়ার পর সে কিছুদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকলেও, পরবর্তীতে স্থান বদল করে বদল করে কাশীপুরস্থ ভোলাইল সিরাজ ও বিল্লালের রিকশার গ্যারেজ কে মাদক বেচা কেনার কেন্দ্রস্থল হিসেবে বেছে নেয়। আর মাদক ব্যবসা পরিচালনায় তাদের শেল্টার দিচ্ছেন স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যাক্তি তাহের মিয়া।

মাদক ব্যবসায়ীরা স্থানীয় প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় থাকায় এখানকার যুব সমাজ ধ্বংসের পথে ধাবিত হলেও উদ্বিগ্ন অভিভাবকগণ ভয়ে কিছু বলার সাহস পাচ্ছেনা বলে জানান অনেকে। তাই এই মাদক ব্যসায়ীদের নির্মূলে স্থানীয় এমপি শামীম ওসমানসহ প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভোলাইল বাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here