নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র একসময়ের সংস্কারবাদী নেতা এড. আবুল কালাম সদর-বন্দরের এমপি হওয়ার লোভে আবারো মূলধারায় ফিরে আসার প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে মনে করে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র তৃণমূল এ জন্য প্রথমে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে আবুল কালামের জন্য চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছিলেন এড. তৈমূর আলম খন্দকার ও বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে বিএনপি’র মনোনয়নে বাঁধার প্রাচীর হয়ে দাঁড়িয়েছেন তৈমূরেরই ছোটভাই মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। আর তাই এ দুই ভাইকে ঠেকাতে ‘সংস্কারবাদী’ আবুল কালাম এখন রাজনীতির মূলধারায় সামিল হচ্ছেন।

ঘটনাসূত্রে প্রকাশ, নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র রাজনীতিতে এড. আবুল কালাম সব সময়ই সুবিধাবাদী অবস্থানে থাকেন। সারা বছর রাজনীতির মাঠে অনুপস্থিত থাকলেও কমিটি গঠন কিংবা নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে এলেই শুরু হয়ে যায় তার দৌঁড়ঝাপ। আর এই দৌড় ঝাপে কমিটির শীর্ষ পদ কিংবা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন বাগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে সব সময়ই সফল হয়ে আসছেন। ইতিপূর্বে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র কমিটি গঠনের সময় পদ না পাওয়ায় বিদ্রোহী হিসেবে পাল্টা কমিটি গঠন করে সংস্কারবাদীর খাতায় নাম লেখান। তখন কমিটি গঠনে তার সামনে বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছিলেন এড. তৈমূর আলম খন্দকার। সে যাত্রায় সফল না হলেও ২০১৭ সালে গঠিত নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র কমিটিতে ঠিকই সভাপতির পদ হাসিল করে নেন।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সভাপতি পদ পাওয়ার পর এড. আবুল কালামের সামনে লক্ষ্য হিসেবে দেখা দেয় আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন। বরাবর এ আসনে বিএনপি’র দ্বিতীয় কোন প্রার্থী না থাকায় এড. আবুল কালামই দলীয় মনোনয়ন লাভ করে আসছিলেন। কিন্তু এবার এই আসনে আবুল কালামের প্রতিদ্বন্দি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের তিনবারের নির্বাচিত কাউন্সিলর ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, যিনি সম্পর্কে বিএনপি’র চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকারের ছোট ভাই।

পদ পদবীতে আবুল কালাম খোরশেদের চেয়ে বড় অবস্থানে থাকলেও রাজপথের রাজনীতিতে কৈারশেদ কালামের চেয়ে অনেক বেশী এগিয়ে। দীর্ঘদিন বিএনপি ক্ষমতার বাইওে থাকায় রাজপথে আন্দোলন সংগ্রাম কওে হামলা মামলার শিকার নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র নেতাকর্মীরা যখন দিশেহারা, তখন এড. আবুল কালাম তার বিলাসবহুল এসি রুমে বসে ফটোসেশন করেই সময় কাটিয়েছেন। আর এ সময়ে রাজপথে সংগ্রামী সময় কাটিয়ে নেতাকর্মীদের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। তাই তৈমূরকে পাশ কাটাতে পারলেও খোরশেদই এখন কালামের প্রধান মাথা ব্যাথা হয়ে দেখা দিয়েছেন। আর এ দুই ভাইকে ঠেকাতে সংস্কারবাদী আবুল কালাম এখন বিএনপি’র মূলধারায় ফিরার নাটক সাজিয়ে যাচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here