নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: মিয়ানমার সেনাদের নিপীড়নের মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে চার দিনের সফরে ঢাকা ছেড়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। টেকনাফ যাওযার পথে বন্দরের মদনপুর এলাকায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অভিবাদন জানিয়েছেন মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সাংসদ আবুল কালাম ও সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল সহ মহানগরের নেতৃবৃন্দরা।

শনিবার (২৮ অক্টোবর) সকাল ৯ টায় মদনপুর স্ট্যান্ড থেকে লাঙ্গলবন্দ পর্যন্ত অবস্থান নেন মহানগর নেতৃবৃন্দরা । দুপুর সাড়ে সাড়ে ১২ টার সময় চেয়ারপার্সনের গাড়ি মদনপুর ক্রস করার সময় মহানগর নেতৃবৃন্দের সাথে সাক্ষাৎ হয়। এ সময় মহানগর নেতৃবৃন্দের মধ্যে সভাপতি আবুল কালাম ও সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালের সাথে চেয়াপারসনের ঈশারায় কথা হয়।

এসময় মুহুর্মুহ শ্লোগান আর করতালির মাঝে তার গাড়িতে ফুলের পাপড়ি ছিটিয়ে সমর্থন ও শুভেচ্ছা জানান নেতা-কর্মীরা। ‘দেশনেত্রীর ভয় নাই, রাজপথ ছাড়ি নাই’ খালেদা জিয়া এগিয়ে চল, ‘জনতা আছে তোমার সাথে’, ‘জেগেছে জনতা, বেঁধেছে জোট, ধানের শীষে দিবে ভোট’-এসব শ্লোগান ছিল নেতা-কর্মীদের মুখে।

এসময় মহানগর বিএনপির সাধারণ সহ-সভাপতি হাজী নুরুউদ্দিন, আয়েশা সাত্তার, এড.জাকির হোসেন, ফখরুল ইসলাম মজনু, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সবুর খান সেন্টু, শওকত হাসেম শকু, আবু আল ইউসুফ খান টিপু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল ইসলাম সজল, আওলাদ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান মনির, দপ্তর সম্পাদক হান্নান সরকার।

এছাড়াও মহানগনর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আবুল কাউসার আশা, বিএনপি নেতা এড.আনিছ, হাজী ফারুক হোসেন, মনির হোসেন, ওহিদুল হক ছকু, শ্রমিক নেতা মনির মল্লিক, যুবদল নেতা আনোয়ার হোসেন আনু, সরকার আলম, মনোয়ার হোসেন শেফন, বিএনপি নেতা দুলাল, হাজী পিয়ারমান, সায়েম কবির, আব্দুর রশিদ হাওলাদার, নজরুল, সোলায়মান সরকার, মনির হোসেন, মাসুদ ফেরদৌস, শওকত আলী লিটন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বেলা পৌনে ১১টায় গুলশানের বাসা থেকে বিএনপি চেয়ারপারসনের গাড়িবহর চট্টগ্রামের পথে রওনা হয়। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুসহ জ্যেষ্ঠ নেতারা এই সফরে খালেদা জিয়ার সঙ্গে রয়েছেন। সফরসূচি অনুযায়ী খালেদা জিয়ার গাড়িবহর দুপুরে ফেনী সার্কিট হাউজে যাত্রা বিরতি করবে। সেখানে মধ্যাহ্নভোজ সেরে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা হবে। চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে রাত কাটিয়ে রোববার বেলা ১১টায় সড়ক পথে কক্সবাজারে উদ্দেশ্যে রওনা হবেন বিএনপি নেত্রী। সেখানে সার্কিট হাউজে রাত কাটিয়ে সোমবার উখিয়ার বালুখালী, বোয়ালমারা ও জামতলী রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণের পরিকল্পনা রয়েছে তার।

বিএনপি মহাসচিব ফকরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “আমরা আশা করি, পথিমধ্যে সরকারের সব ধরনের সহযোগিতা পাব। পুলিশ মহাপরিদর্শক আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন, তারা দেশনেত্রীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন এবং তার সফর যাতে সুন্দরভাবে হয়, তাতে সহযোগিতা করবেন।”

গুলশান ছাড়ার সময় খালেদা জিয়ার বহরে অর্ধশতাধিক গাড়িতে বিএনপি নেতাকর্মীরা ছিলেন। তাদের সঙ্গে ছিল সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের কয়েক ডজন গাড়ি। যাওয়ার পথে দলের নেতা-কর্মীরা যাতে সুশৃঙ্খলভাবে রাস্তার দুই ধারে দাঁড়িয়ে খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানাতে পারেন, সেজন্য জেলা নেতাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে বিএনপি মহাসচিব সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন। গত ২৫ অগাস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে সেনাবাহিনীর দমন অভিযানের মুখে বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের ঢল নামলে তাদের সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন। রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা ও নাগরিক অধিকার দিয়ে মিয়ানমারে পুনর্বাসনের দাবিও তিনি জানিয়েছেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here