নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: মশক নিধনে পার্শ¦বর্তী ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন যেখানে জনস্বার্থে কন্ট্রোল চালু করার পাশাপাশি বিস্তর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে, সেখানে নগরবাসীর দূর্ভোগেও কুম্ভকর্ণের মত ঘুমিয়ে রয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন।
আর মশার উপদ্রবে নগরবাসী রীতিমত অতিষ্ঠ হয়ে পড়লেও মুখে বড় বড় বুলি আওড়ানো নাগরিক সমাজও এক্ষেত্রে মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছে নীরব। নগরবাসীর মত তারাও মশার কামড় নীরবে সহ্য করলেও নাসিকের নিস্তব্দতার বিরুদ্ধে কোনরূপ প্রতিবাদ করছেনা।

এতে করে নাগরিক কমিটি এবং আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠন তথা নারায়ণগঞ্জের নাগরিক সমাজের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাধারন জনগণ। সমালোচনা করে কেউ কেউ মন্তব্য করেন, কেবল মাত্র সিটি মেয়র আইভী কোন সমস্যার সম্মুখীন হলেই তথাকথিত এসকল নাগরিক সমাজের লোকেরা তার পক্ষ নিয়ে রাজপথে নেমে চেঁচায়। বাস্তবে সাধারন নাগরিকের স্বার্থে কখনো নাসিকের বিরুদ্ধে মাঠে নেমে প্রতিবাদ করার সাহস পাননা। যদি এই নাগরিক কমিটির নেতৃবৃন্দরা সত্যিই সাধারন নাগরিকের সুবিধা অসুবিধা নিয়ে ভাবতেন, তাহলে মশায় অতিষ্ঠ নগরবাসীর স্বার্থে কুম্ভকর্ণ নাসিকের ঘুম ভাঙ্গাতে অবশ্যই মাঠে নামতেন। বাধ্য করতেন মশক নিধনে অন্যান্য সিটি কর্পোরেশন গুলোর ন্যায় নাসিককেও কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার। কিন্তু নাগরিক সমাজের নেতৃবৃন্দরা নীরব থেকে পক্ষপাতিত্বের পরিচয় দিয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এড. এবি সিদ্দিক, সাধারন সম্পাদক আব্দুর রহমান, আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর সভাপতি হাজী নুরুদ্দিন, সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দিন মন্টু সহ নাগরিক সংগঠন গুলোর নেতৃবৃন্দরা মশার ব্যাপারে সিটি কর্পোরেশনের বিরুদ্ধে কোন প্রতিবাদ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন সচেতন মহল।

উল্লেখ্য, “মশা মুক্ত নারায়ণগঞ্জ চাই” দাবীতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর দৃষ্টি আকর্ষনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এখন জনমত গড়ে তুলছে মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ নগরবাসী।

বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম মশার অত্যাচার আর সইতে না পেরে এখন ফেসবুকে নানা মন্তব্য ও দাবী উথাপন করে আসছেন। কিন্তু তাতেও টনক নড়ছেনা নাসিকের।

দিন কিংবা রাত, বাসা-বাড়ী থেকে কর্মস্থল কিংবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে হাসপাতাল, এমন কোথাও বাদ নেই, যেখানে মশার উপদ্রব নেই। সর্বত্রই এখন মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ নগরবাসী।

আর তাই নানা প্রতিকূলতাকে প্রতিহত করে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র আইভীসহ ৩৬ কাউন্সিলর জনপ্রতিনিধি নিবাচিত হলেও তারা নগন্য প্রাণী মশার কাছে এখন পরাজিত হয়ে গেছেন বলে মন্তব্য করেছেন সচেতন নাগরিকরা।

তাদের দাবী, গত বছরে চিকনগুনিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর সিটি কর্পোরেশন নামমাত্র ঔষধ ছিটালেও বর্তমানে নগরী জুড়ে মশার উপদ্রব বেড়ে গেলেও ভ্রুক্ষেপ নেই সিটি কর্পোরেশনের। নগরবাসীকে মশার কবল থেকে রক্ষার দায়িত্ব মেয়রসহ কাউন্সিলরদের হলেও তারাও কোন পদক্ষেপ নেননি। কোন ওয়ার্ডেই ছিটানো হচ্ছেনা মশক নিধনের স্প্রে।

যার ফলে মশক নিধনে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে নাসিক মেয়রসহ কাউন্সিলরদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here