নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি’র সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে নবীন সদস্য হওয়া কর্মীরা নিরাপত্তা ঝুঁকিতে আছে, আর তাই কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে নতুন সদস্য হওয়া কর্মীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে না বলে জানিয়েছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি, তবে এ বিষয়ে ভিন্ন মত প্রকাশ করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি। জেলা বিএনপি’র মতে বিএনপি কোন গোপন রাজনৈতিক দল না যে তার কর্মীদের তালিকা প্রকাশ করা যাবে না।

ঘটনাসূত্রে প্রকাশ, দীর্ঘ প্রায় এক যুগ ক্ষমতার বাইরে থাকার ফলে সারা দেশের মতো নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র নেতাকর্মীদের অবস্থাও নাজেহাল। সরকারী দলের মামলা হামলায় জর্জরিত হয়ে ঘর বাড়ি ছেড়ে যাযাবর জীবন যাপণ করছে। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মাঠ পর্যায়ের এসব তৃণমূল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করে দলকে সাংগঠনিকভাবে গতিশীল করার লক্ষ্যে দেশব্যাপী সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ণ কর্মসূচ ঘোষনা করেছে বিএনপি।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচি সফল করতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র নেতাকর্মীরা উৎসবমূখর পরিবেশে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমে অংশ নেয়। নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপিসহ বিএনপি’র চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকার, সাবেক এমপি মো: গিয়াসউদ্দিন, মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খানের নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচি পালিত হয়। আর এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র তৃণমূল নেতাকর্মীদের মাঝে যেনো নতুন প্রাণের সঞ্চার হয়। প্রায় এক যুগ সরকারী দলের হামলা মামলায় নাজেহাল নেতাকর্মীরা সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমকে কেন্দ্র করে আবারো এক সুতায় গাঁথা হতে থাকে।

সারাদেশে এক কোটি নতুন সদস্য সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে শুরু হওয়া এই কর্মসূচিতে নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রায় দুই লক্ষ নতুন সদস্য সংগ্রহের আশা করা হয়। কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে যারা নতুন সদস্য হবে, তাদের তালিকা প্রকাশ করা নিয়ে ভিন্ন মত দেখা দিয়েছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ও নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র মধ্যে। নারায়ণগঞ্জ মহানগরের মতে, যারা নতুন সদস্য হবেন তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে তালিকা প্রকাশ করা হবে না। অপরদিকে এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি’র মন্তব্য হলো, তালিকা প্রকাশে কোন বাঁধা নেই।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, যারা বিএনপি’র নতুন সদস্য হচ্ছে, তাদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করেই আমরা এই তালিকা প্রকাশ করবো না। কারন এই ইস্যুতে নতুন এই সদস্য মামলা হামলার শিকার হতে পারেন। তাই আমরা সদস্য সংগ্রহ শেষ হলে তা ডাটাবেজ আকারে কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেবো।

অপরদিকে একই বিষয়ে ভিন্ন মত পোষন করে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপর মামুন মাহমুদ নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, বিএনপি কোন গোপন রাজনৈতিক দল না যে তার সদস্যদের তালিকা প্রকাশ করা যাবে না। এ ক্ষেত্রে নিরাপত্তার ঝুঁকির কোন বিষয় ভাবাটা অবান্তর। দায়িত্বশীল পদে থেকে কেউ এ ধরনের বক্তব্য দিতে পারেন না। এটা বিএনপি’র কোন বক্তব্য না, এটা তার ব্যক্তিগত বক্তব্য। কারন কেন্দ্র আমাদের তালিকা প্রকাশ করার বিষয়ে নিষেধ করেনি। তাই নিজের মতামতকে বিএনপি’র বক্তব্য হিসেবে চালিয়ে দেয়ার কোন অবকাশ নেই। তাছাড়া যারা নারায়ণগঞ্জে বিএনপি’র নতুন সদস্য হচ্ছে, তারা খুব আগ্রহ সহকারে নিজের ইচ্ছায়ই সদস্য হচ্ছে, তাদের ভয় পাওয়ার কোন কারন নেই। এ ধরনের বক্তব্য কোন দায়িত্বশীল ব্যক্তির কাছে আশা করা যায় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here