নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: কক্সবাজার রোহিঙ্গা শিবিরে ত্রাণ বিতরন শেষে ঢাকায় ফেরার পথে ফেনীতে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার গাড়ী বহরে দ্বিতীয় দফায় হামলার প্রতিবাদে বুধবার (১ নভেম্বর) কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সারাদেশে যুবদল, স্বেচ্ছা সেবকদল ও ছাত্রদলের বিক্ষোভ কর্মসূচীর ডাক দেয়া হলেও এদিন মাঠে নামেনি নারায়ণগঞ্জ স্বেচ্ছা সেবকদল ও ছাত্রদল।

তবে জেলা যুবদল সভাপতি মোশারাফ হোসেনের মা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় নারায়ণগঞ্জে জেলা যুবদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন সম্ভব না হলেও মহানগর যুবদলের আয়োজনে নগরীতে পালিত হয়েছে বিক্ষোভ কর্মসূচী। আহ্বায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের নেতৃত্বে এদিন দুপুরে নগরীতে বিক্ষোভ বের করে মহানগর যুবদল নেতৃবৃন্দরা।

কিন্তু প্রতিবাদ বিমুখ ছিল জেলা স্বেচ্ছা সেবকদল ও জেলা মহানগর ছাত্রদল। কেন্দ্রীয় কর্মসূচী সত্ত্বেও রাজপথে বিক্ষোভ প্রদর্শনে ভীত এই সংগঠন দু’টির শীর্ষ নেতাদের সাথে একাধিবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও জেলা স্বেচ্ছা সেবকদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আকরাম প্রধান, ও মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাউসার আশাসহ কেউই মুঠোফোন রিসিভ করেন নি। তন্মধ্যে দু’একজনের মুঠোফোন আবার বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মাসুকুল ইসলাম রাজীব নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ‘ভাই আমি এখন মূলদলে (বিএনপি) চলে এসেছি।’

অপরদিকে, বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) একই ইস্যুতে দেশব্যাপী জেলা ও মহানগর পর্যায়ে বিক্ষোভ কর্মসূচী রয়েছে বিএনপির। গত সপ্তাহে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে আহূত বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন কালে মহানগর বিএনপি পুলিশী বাঁধার শিকার হয়ে বাসগৃহে আর সভাপতি এড. আবুল কালাম এসি রুমে আরামে বসে পালন কওে এবং কেন্দ্রের অজুহাতে জেলা বিএনপি একই কর্মসূচীর আহ্বান করেও স্থগিত করে বিতর্কের জন্ম দেয়ায় বৃহস্পতিবারের বিক্ষোভ কর্মসূচীটি তাদের জন্য পরীক্ষার সম্মুখীন হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

তাই বৃহস্পতিবারের বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনের মাধ্যমে জেলা ও মহানগর বিএনপি কতটুকু সফল হবেন, সেটাকে এখন তাদের পরীক্ষা হিসেবেই দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কারন, জেলা বিএনপির উদ্যোগে বিকেল ৩ টায় শহরের চাষাড়াস্থ শহীদ মিনারে বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে। আর মহানগর বিএনপির উদ্যোগে একই সময় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে।

যেহেতু বিগত কয়েকটি কর্মসূচীতে জেলা ও মহানগর বিএনপি যেই বিকর্তের সৃষ্টি করেছেন, তা ঢাকতে বৃহস্পতিবারের কর্মসূচীটি ক্লাস পরীক্ষা হিসেবেই অনুধাবন করে তাদের সফল করতে হবে বলে অভিমত রাজনীতিবিদদের। নচেৎ আগামীতে নারায়ণগঞ্জে সরকার বিরোধী আন্দোলন মুখ থুবরে পড়বে বলে শংকা প্রকাশ করেন তৃণমূল।

উল্লেখ্য, গত ২৮ অক্টোবর চার দিনের সফরে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবিরে ত্রাণ বিতরনের লক্ষ্যে ঢাকা থেকে যাত্রাকালে ফেনীতে তার গাড়ী বহরে হামলা চালায় দুবৃর্ত্তরা। এরপর খালেদা জিয়া ত্রাণ বিতরন কার্যক্রম শেষে ৩১ অক্টোবর ঢাকায় ফেরার পথে ফের ফেনীতেই তার গাড়ী বহর লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে দুবৃর্ত্তরা।
এই ঘটনায় প্রতিবাদে বুধবার (১ নভেম্বর) সারাদেশে যুবদল, স্বেচ্ছা সেবকদল, ছাত্রদল এবং বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) জেলা ও মহানগর পর্যায়ে বিএনপির উদ্যোগে বিক্ষোভ কর্মসূচীর আহ্বান করেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here