নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি : নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ১৮ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্নাকে হুঁশিয়ারী করে দিয়ে বর্তমান কাউন্সিলর কবির হোসাইন বলেছেন, এই এলাকায় মাদক ও চাঁদাবাজির সাথে কোন প্রকার আপোষ নাই। যদি এই এলাকায় আমার কোন কর্মীকে আঘাত করা হয় তাহলে প্রতিরোধ নয়, প্রতিশোধ নেয়া হবে। বাড়াবাড়ি করলে পরিনত ভালো হবে না।

শুক্রবার (৫ মে) বিকাল সাড়ে ৫ টায় শীতরক্ষ্যায় কাউন্সিলর কার্যালয়ে আয়োজিত মহান মে দিবস ২০১৭ উপলক্ষে মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ বিরোধী আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলে কথা বলেন তিনি।

সভাপতির বক্তেব্যে কাউন্সিলর  মোঃ কবির হোসাইন বলেন, আপনারা জানেন মাত্র ৪ মাস হলো আমি অত্র ওয়ার্ডে কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেছি। এরই মধ্যে এলাকার কতিপয় লোকেরা আমার পেছনে লেগেছে। কিছুদিন আগে এই ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর মুন্নার লোকজন গন্ডগোল করলে সেখানে আমি গিয়ে সমাধানের চেষ্টা করি। অথচল আমার বিরুদ্ধে মুন্না কুৎসা রটাচ্ছে আমি নাকি মাদক ব্যবসায়ীদের মদদ দেই। তার প্রতি আমার পাল্টা প্রশ্ন এই শীতলক্ষ্যায় কারা মাদক ব্যবসা চালায় প্রশাসন তা ভালো করেই জানে।

তিনি আরো বলেন, মাত্র ৪ মাসে ২০কোটি টাকার কাজ অত্র এলাকার জন্য বরাদ্দ আনায় সাবেক কাউন্সিলর মুন্নার মাথা খারাপ হয়ে গেছে। এই কাজ আনাই হলো আমার অপরাধ। আমি যাতে এলাকার উন্নয়ন করতে না পারি সেটার চেষ্টাই করছে মুন্না।

তিনি আরো বলেন, আমার এলাকায় কোন কমিনিউটি সেন্টার নেই। ডিআর খালটি আমরা লেকে পরিনত করবো।

এ সময় তিনি এলাকাবাসীদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, আমি মাদক ব্যবসায়ী হলে আমার কাছে আপনারা কেউ আসবেন না। যদি ভাল লোক হই তবেই আসবেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, ১৮নং ওয়ার্ড কমিনিউটি পুলিশের সভাপতি হাজী নেওয়াজ উল্লাহ, নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগ সহ-সভাপতি শাহীন আহমেদ, শিকড় স্মৃতি সংসদ সভাপতি আলহাজ্ব সফিকুল ইসলাম, কনসাস সাধারন সম্পাদক মোঃ মুসলিম উদ্দিন আহমেদ, জহিরুল ইসলাম, হাজী নেওয়াজ উদ্দিন সানী, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিক ১৮নং ওয়ার্ড (ডেপুটি কমান্ডার), সাবেক কাউন্সিলর খোদেজা খানম নাসরিন, ডিয়ারা যুব সংগঠন সভাপতি জহিরুল আলম , হাজী কাইয়ূম মিয়া সহ প্রমূখ।
উল্লেখ্য, উক্ত অনুষ্ঠানে এলাকার প্রায় ১ হাজার লোকের মাদক বিরোধী গণস্বক্ষর নেওয়া হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here