নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: জেলা পুলিশ প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপে দীর্ঘদীন ধরে ফতুল্লার মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রিত পর্যায়ে থাকলেও এবার ভিন্ন কৌশলে মাদকের রমরমা ব্যবসা চালিয়ে আসছে মাদক ব্যবসায়ীরা। নির্বিঘেœ মাদক ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য বাড়ীর চারিদিকে সিসি ক্যামেরা এমনকি পুলিশের কথিত সোর্সদের ম্যানেজের মাধ্যমে গতিবিধি পর্যবেক্ষনের করে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে ফতুল্লার তালিকাভূক্ত মাদক ব্যবসায়ীরা। এমনকি মাদক স¤্রাঞ্জী সানির স্ত্রী নিশা সুন্দরী মেয়েদের ব্যবহার করে টেকনাফ থেকে বিভিন্ন ধরনের মাদক সরবরাহের মাধ্যমে ফতুল্লার বিভিন্ন অলিগলিতে মাদক সরবরাহ করে আসছে। এমনকি র‌্যাবের ক্রসফায়ারে নিহত মাষ্টার দেলুর স্ত্রীও রয়েছে নিশার বলয়ে। কক্্রবাজারের টেকনাফ থেকে অভিনব কৌশলে বিপুল পরিমান ইয়াবার চালান নারায়ণগঞ্জে প্রবেশ করাচ্ছে এবং ফতুল্লার তালিকাভূক্ত মাদক ব্যবায়ী আপেল, হাজ্বী রিপন, বন্দরের সাহাবুদ্দিন ওরফে ডাকাত সাহাবুদ্দিনের কাছে সরবরাহ করছে মাদকদ্রব্য। মাদক স¤্রাজ্ঞী নিশার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা থাকা স্বত্ত্বেও অনেকটা কৌশল পরিবর্তন করে মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে ফতুল্লার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আপেল, হাজ্বী রিপন, সুন্দরী নিশা, নিহত মাষ্টার দেলুর স্ত্রী, বন্দরের সাহাবুদ্দিনের মাদক ব্যবসার লাঘাম টেনে না ধরতে পারলে ফতুল্লায় মাদকের অভায়রাণ্যে পরিনত হওয়ার আশংকা করছেন সচেতন মহল। অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ-৪(ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) এলাকা কে মাদকমুক্ত রাখার যে ঘোষনা দিয়েছে তা বাস্তবিক রূপ পেতে অনেকটা ব্যাঘাত ঘটতে পারে যদি না দ্রুত সময়ের মধ্যে এ সকল মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব না হয়।

সূত্রে জানা যায়, ক্ষমতাসীনদলের সাইনবোর্ড ব্যবহার করে ফতুল্লার জামতলা এলাকায় একক আধিপত্য বিস্তারের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে জামতলা এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আপেল মাহামুদ। পুরো জামতলা এলাকার সিংহভাগ এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার ফলে আইনশৃংখলা বাহিনীর অভিযান পরিচালনার আগেই আপেল টের পেয়ে যাচ্ছে। এ সময় আপেলের সেলসম্যানদের আইনশৃংখলা বাহিনীর অভিযানের বার্তা পৌছানের মাধ্যমে ধরাছোয়ার বাইরে থাকে তার লোকজন। তবে স্থাণীয় প্রশাসন এর মধ্যে একাধিক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করলেও বরাবরের মতই ধরাছোয়ার বাইরে রয়েছে আপেল। অবশ্য স্থাণীয় পুলিশ প্রশাসন মাদক ব্যবসায়ী আপেলকে পলাতক আসামি দেখিয়ে একাধিক মাদক মামলা দায়ের করছে। তবুও নিয়ন্ত্রনে আসেনি তার মাদক ব্যবসা। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত একাধিক সেলসম্যানের মাধ্যমে প্রতিদিন কয়েক লক্ষাধিক টাকার মাদক বিক্রি করে আসছে। অনেকটা নিরাপদ বিধায় মাদক সেবীরা জামতলা আপেলের স্পট থেকে মাদক সরবরাহ করছে। যা কিনা প্রকাশ্যে সরজমিনে খোঁজখবর নিলেই এর সত্যতা পাওয়া যাবে।

শহরের জামতলা এলাকার নব্য মাদক ব্যসায়ীর তালিকায় যার নাম উঠে আসে এর মধ্যে অণ্যতম হাজ্বী রিপন। ক্ষমতাসীনদলের সাইনবোর্ড লাগিয়ে এই নব্য মাদক ব্যবসায়ী অল্পদিনের মধ্যেই মাদকের গডফাদারের উপাধি পেতে সক্ষম হয়েছে। জামতলার হাজ্বী ব্রাদাসরোডের গলি থেকে শুরু করে অক্টোঅফিস মোড় পর্যন্ত একক নিয়ন্ত্রনে হাজ্বী রিপনের লোকজন মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। এমনকি মাদক ব্যবসার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে মাদক ব্যবসায়ী আপেল এবং হাজ্বী রিপনের লোকজনদের একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। তারপরেও থেমে নেই তাদের মাদক ব্যবসা। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ফেনসিডিল, ইয়াবা, হেরোইনসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক অনেকটা প্রকাশ্যেই বিক্রি করে আসছে হাজ্বী রিপন।

মাসদাইর পতেঙ্গামোড় এলাকার চিহ্নিত মাদক স¤্রাঞ্জী সুন্দরী নিশার নিয়ন্ত্রনে ফতুল্লার ফাজিঁলপুর , পাইলটস্কুল এলাকা। বন্দরের ডাকাত সাহাবুদ্দিন এবং ক্রসফায়ারে নিহত মাষ্টার দেলুর স্ত্রীও রয়েছে তার বলয়ে। কক্্রবাজারের টেকনাফ থেকে মাষ্টার দেলুর স্ত্রী এবং একাধিক সুন্দরী রমনীর মাধ্যমে হাজার হাজার পিচ ইয়াবার চালান ফতুল্লায় প্রবেশ করাচ্ছে। সুন্দরী নিশার রূপের আগুন জ্বলছে গিয়ে আইনশৃংখলা বাহিনীর একাধিক পুলিশ সদস্যের সাথেও রয়েছে তার অবাধ বিচরন এমনটাও শুনা যায়। নিশার মাদক ব্যবসার নিয়ন্ত্রনের ক্ষেত্রে আইনশৃংখলা বাহিনী কিংবা স্থাণীয় লোকজন বাধার কারন হয়ে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ তুলে কুপোকাত করা থেকে শুরু করে তার অপকর্মের প্রতিাদী মানুষকে মিথ্যা মামলা দিতেও ছাড়েনা সুন্দরী নিশা। তাই ফতুল্লার মাদক নিয়ন্ত্রনসহ জিরো টলরেন্সে আনার জন্য অনতিবিলম্বে উল্লেখিত মাদক ব্যবসায়ীকে আইনের আওতায় আনা একান্ত জরুরী বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি কামাল উদ্দিন জানান, মাদকের বিষয়ে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। মাদক ব্যবসায়ীর পরিচয় মাদক ব্যবসায়ী হিসেবেই। একজন মাদক ব্যবসায়ী যত বড় প্রভাবশালী হউক না কেন তাদেরকে কোন ভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here