নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ‘একদিন বিশ্বের মানুষ আসবে নারায়ণগঞ্জ দেখতে’- নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী সিটি মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী ও নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের এমপি শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জে খুব গর্বের সাথেই এমনটা দাবী করলেও সারা দেশের মধ্যে এখন বায়ুদূষণের শীর্ষ শহরে পরিনত হয়েছে এই নারায়ণগঞ্জ।
গত ১৮ মার্চ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরিবেশ সুরক্ষা সংস্থা ইউএস এনভায়রনমেন্ট প্রোটেক্টশন এজেন্সীর প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমনই ভয়াবহ চিত্র উঠে এসেছে। যেখানে চলতি মার্চ মাসে বায়ুর গুণমান সূচকে ৫৩৮ স্কোর করে বায়ু দূষনে দেশের শহরগুলোর মধ্যে এক নম্বরে উঠে এসেছে নারায়ণগঞ্জ।

আর তাই সচেতন মহলের মতে, যতই উন্নয়ণ করা হউক না কেন, বায়ুদূষণের কারনে কোন বিদেশী পর্যটক কখনো আসবেনা নারায়ণগঞ্জে। কারন, তারা অনেকটাই স্বাস্থ্য সচেতন।

জানাগেছে, যে কোনো শহর বা দেশের বাতাসের প্রতিদিনের গুণগত মান নির্ধারণে কাজ করে ইউএস এনভায়রনমেন্টাল প্রটেকশন এজেন্সী। তারাই এই সূচক প্রণয়ন করে। স্মার্টফোনের একটি এপ্লিকেশন এয়ার ভিস্যুয়াল দিয়ে বাতাসের ডাটা সংগ্রহ করে এই সূচক করা হয়।

স্ট্যাটিসটিকস অব বাংলাদেশ ডিপার্টমেন্ট অব এনভায়রনমেন্ট এজেন্সীর গবেষণায় দেখানো হয়েছে, ১১ মার্চ নারায়ণগঞ্জে বাতাসের গুণগত মানের সূচক ছিল ৩০৮। দেশে সব শহরের মধ্যে মার্চে সবচেয়ে বেশি বায়ুদূষণ রেকর্ড করা হয় নারায়ণগঞ্জে। ১৮ মার্চ সেই স্কোর ছিল ৫৩৮।

ইউএস এনভায়ারনমেন্ট প্রোটেকশন এজেন্সীর হিসেব মতে, বায়ুর গুণমান সূচক অনুযায়ী ৫০ এর নিচে অবস্থান করাকে সুস্থ্য বাতাস হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ৩০০ এর উপরে বিপজ্জনক মনে করা হয় এবং ৩০১-৫০০ পর্যন্ত অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর বিবেচনা করা হয়।

চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতে, বাতাসে ধুলো সাধারণত শুষ্ক মৌসুমে পাঁচগুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়। নির্মানাধীন স্থান থেকে ধুলিকণা শহরের পরিস্থিতি আরও খারাপ করে তোলে। ফলে দিনদিন ফুসফুসের রোগ সহ নানান বায়ু দূষণ জনিত রোগ বেড়েই চলেছে। ধুলিকণার ফলে শ্বাসযন্ত্রের সিস্টেম মারাত্বকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। বায়ু দুষণে অ্যাজমা হতে পারে, ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়াসহ নানা সংক্রমনের কারণ হতে পারে।

এদিকে সরেজমিন দেখাগেছে, নারায়ণগঞ্জ শহরের পাশাপাশি ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন লিংক রোডের মাসদাইর থেকে পাগলা পর্যন্ত মহাসড়কে দু’পাশে জমাট থাকা বালুকণা বাতাসে ছড়িয়ে চরম পরিমানে বায়ুদূষণ করছে। উক্ত সড়ক দিয়ে উন্মুক্ত যানে চলাচল করা যাত্রীদের রীতিমত ধুলোয় সাদা হয়ে যেতে হচ্ছে। যাত্রাপথে নাক-মুখ ঢেকেও যেন বায়ুদূষণের কবল থেকে আত্মরক্ষা করতে ব্যর্থ হচ্ছে জনসাধারনকে।

আর তাই, আগে বায়ু দূষণ রোধে করনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেই বিশ্ববাসীকে নারায়ণগঞ্জ দেখতে আসার আমন্ত্রণ জানাতে জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here