নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: মাসদাইরে নিহত গার্মেন্টস কর্মকর্তা শাখাওয়াত হোসেন শুভ’র ময়না তদন্ত শেষে খুনের আলামত পাওয়া গেছে বলে নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: আসাদুজ্জামান।
বুধবার (২৩ আগষ্ট) ময়না তদন্তের কপি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। আর ডাক্তারের এই বক্তব্যের পর মামলা নিতে পুলিশের কোন আপত্তি থাকবে না বলে জানিয়েছে শুভ’র পরিবার।

গার্মেন্টস কর্মকর্তা শুভ’র ময়না তদন্তের বিষয়ে ভিক্টোরিয়া হাসপাতালের আবাসিক কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, শুভ’র ময়না তদন্ত শেষ হয়েছে। তদন্তে হত্যার আলামত পাওয়া গেছে। শুভকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে এবং শুভ’র শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন ছিলো। বুধবার তদন্ত রিপোর্ট পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এদিকে ময়না তদন্তের রিপোর্টে হত্যার ঘটনা প্রকাশ হওয়ায় শুভ’র পরিবারের আশংকাই সত্যি হলো বলে জানিয়েছে শুভ’র পরিবার। শুরু থেকেই পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছিলো শুভকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছিলো। কিন্তু একটি প্রভাবশালী মহল প্রচার করতে চাইছিলো, শুভ মাদক সেবনকালে ছাদ থেকে পরে মারা গেছে।

ময়না তদন্তের রিপোর্টে হত্যার আলামত পাওয়া গেছে শুনে নিহত শুভ’র বাবা শাহাদাত হোসেন শিকদার নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, আমরা এবার হত্যা মামলা দায়ের করবো। শুভ নিহত হওয়ার পর থেকেই আমরা বলে আসছি, আমার ছেলে ছাদ থেকে পরে মারা যায়নি, তাকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু থানা আমার কথা বিশ^াস করেনি। তারা পোষ্ট মর্টেম রিপোর্টের অপেক্ষায় ছিলো। এখন রিপোর্টে খুনের বিষয় স্পষ্ট হয়েছে। তাই আমার মামলা নিতে তাদের আর কোন আপত্তি থাকার কথা না। আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই।

শুভ’র পিতা শাহাদাত আশংকা প্রকাশ করে বলেন, একটা প্রভাবশালী মহল প্রথম থেকেই এই হত্যাকান্ডকে ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে। তারা এখনও সক্রিয় রয়েছে। তাই আমি আমার ছেলে হত্যার সুষ্ঠ বিচারের দাবীতে প্রশাসনের সর্বোচ্চ পর্যায়ের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১৫ আগষ্ট) রাতে মাসদাইর নিবাসী শাহাদাত হোসেন শিকদারের বড় ছেলে গার্মেন্টস কর্মকর্তা শাখাওয়াত হোসেন শুভ’র লাশ নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় কয়েকজন যুবক। সন্দেহভাজন হিসেবে মাসদাইরের নাজমুল, জীবন ও মনাকে গ্রেফতার করে ৫৪ ধারায় আদালতে প্রেরণ করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

আর হত্যাকান্ডের দিন ফতুল্লা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) শাহজালাল গনমাধ্যম কর্মীদের কাছে স্বীকার করেছিলেন, ‘ধারনা করা হচ্ছে শুভকে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের মুখে আঘাতের চিহৃ রয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here