নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আব্দুল কাদের বলেছেন, আমরা সরকারের সহযোগিতার জন্য এই কর্মসূচি পালন করতে যাচ্ছি। এ পর্যন্ত ৮ লাখেরও অধিক সংখ্যক রোহিঙ্গা স্মরনার্থী আমাদের দেশে এসেছে। এই সমস্যা রোধে সরকারের উচিত আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা দায়ের করা। আমাদের দেশে অন্য দেশের এই আট লক্ষ লোক আসার বিষয়টি আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন।

 

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টায় পূর্ব ঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর নির্যতনের প্রতিবাদে শহরের ডিআইটি মসজিদের সামনে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর নেতৃবৃন্দ ঢাকার মায়ানমার দুতাবাস ঘেরাও কর্মসূচী পালনের উদ্দেশ্যে যাত্রার আগে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

তিনি আরো বলেন, আমরা নিয়মতান্ত্রিক ভাবে যে যার মত পায়ে হেটে ট্রেনে করে বাসে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবো এবং আজকের ঘেরাও কর্মসূচী সফল করবো। প্রশাসন কেন আমাদের বাধা দেবে দেশের স্বার্থে এবং মুসলমানদের স্বার্থে এই কর্মসূচি পালন করছি। হেফাজত কোন সন্ত্রাসী সংগঠন নয়। জ্বালাও পোড়াও কোনকর্ম সূচি হেফাজত করে না। আমরা আন্দোলন করি শান্তিপূর্ণ সংগঠন হিসেবে আর কর্মসূচি পালন করি। আমি সরকারের কাছে আর প্রশাসনের কাছে জানতে চাই কেন আমাদের শান্তিপূর্ণ এই কর্মসূচিতে তারা আমাদেরকে বাধা দেয়। আমাদের এই ২নং রেল গেইট এলাকায় যে ভাধা দেওয়া হয়েছে ইনশাল্লাহ এখান থেকেই আমরা বাসে আর ট্রেনে করে ঢাকায় যাব। প্রয়োজনে আমরা পায়ে হেটে হলেও ডাকা যাব। আমরা আমাদের ইমানী দাযিত্ব পালন করতে এসেছি। শুধু মায়ানমার দুতাবাস ঘেরাও নয় ওইদিন অতি নিকটে যেদিন পুরো মায়ানমার দখল করে নিবেতৌহিদী জনতা।

 

পরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর হেফাজতের নেতাকর্মীরা ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। এ সময় তাদে কে বাসে চড়ে এবং ট্রেনের ছাদে করে ঢাকায় যেতে দেখা গেছে। এর আগে সকাল নয়টার দিকে কড়া পুলিশি পাহাড়ায় হেফাজতের একটি মিছিল শহরের ২নং রেল গেইট এলাকায় পৌছেসংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রাখেন নেতৃবৃন্দ।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here