নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহবায়ক রফিউর রাব্বি বলেছেন, ‘মেধাবী ছাত্র ও সাংবাদিক শুভ্র হত্যাকারীরা পুলিশের কাছে ধরা পড়েছে। তাদের ফাাঁসি চাই। আমরা প্রশ্ন করে নারায়ণগঞ্জ বাসীকে বলতে চাই কেন শুভ্রকে ছিনতাইকারীদের হাতে তার জীবন দিতে হলো। খুনাখুনিতে আজ নারায়ণগঞ্জ ছেঁয়ে গেছে।’
শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টায় ছিনতাইকারীদের হাতে নিহত সরকারি তোলারাম কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র শাহরিয়ার মাহমুদ শুভ্রর হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব মিলনায়তনের সামনে সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চ আয়োজিত মানববন্ধন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রফিউর রাব্বি আরো বলেন, ‘অপরাধীরা সরকারী দলের লোক হলে সরকার বলে বিচার করা যাবে না। সরকারকে বলতে চাই আপনারা সংবিধান স্পর্শ করে শপথ করেছেন এই ভূখন্ড আপনারা রক্ষায় নিয়োজিত থাকবেন। কিন্তুু আপনাদের এই ওয়াদা কখনোই ঠিক রাখেন না। সরকার শুধু সরকার দলীয় কর্তা ব্যাক্তিদের নিরাপত্তা দেন। গণতান্ত্রিক দেশে এই নিয়ম হতে পারে না। সাধারন মানুষদের নিরাপত্তা এতে খর্ব করা হচ্ছে। আজ দেশে শুভ্রর মতো মেধাবীদের খুন হয়ে লাশ হতে হচ্ছে। শুভ্রর হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই আমরা।’

এ সময় অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা তাদের বক্তব্যে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ আজ মৃত্যু উপাত্যকায় পরিনত হয়েছে। যে লিংক রোডে শুভ্রকে হত্যা করেছে ঘাতকরা, সেখানে বিগত দিনে বেলার নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হকের স্বামী এবি সিদ্দিক অপহরন, আলোচিত ৭ খুনের ভিকটিমসহ কয়েকটি ছিনতাইয়ের ঘটনা এই এলাকায় ঘটেছে। এই চিহ্নিত ছিনতাইকারীরা কাদের ছত্র ছায়ায় চলে আমরা তা জানতে চাই। এই নারায়ণগঞ্জের জনপ্রতিনিধিরা বলেন মাদক ব্যবসায়ীদের কলিজা টেনে বের করে আনবো। আবার তাদের পেছনে দাঁড়িয়ে ওইসব মাদক ব্যবসাযীদের ছবি তুলতে দেখা যায়।’

‘নারায়ণগঞ্জের সন্ত্রাসীরা আজ গডফাদার তৈরী করছে। নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে মাদক ব্যবসা চলছে তার পাশাপাশি চলছে খুন। এই ৫টি আসনের এমপিরা ত্বকী, চঞ্চল আর শুভ্র হত্যার বিচার চেয়ে এগিয়ে আসেন নি। তারা এসব হত্যাকান্ডের বিচার কখনোই চায়নি।’

‘পুলিশ প্রশাসনকে বলতে চাই নিরাপদ নারায়ণগঞ্জে নিরাপদে রাখুন। শুধু সংসদ সদস্যদের নিরাপত্তা দিয়েন না সাধারন মানুষদেরও নিরাপত্তা দেন। খান সাহেব ওসমান আলী ষ্টেডিয়ামের সামনে পুলিশের চেকপোষ্ট আবার লিংক রোডে আরেকটি চেকপোষ্ট থাকার পরও কিভাবে শুভ্রকে হত্যা করা হলো। এমপি, এসপিরা কি এসব দেখেন না? এই নারায়ণগঞ্জে ৭ খুন, ৫খুনের বিচার হয়েছে শুধু বিচার হয়নি ত্বকী হত্যা আর চঞ্চল হত্যার।’

তারা আরো বলেন, ‘দেশে রোহিঙ্গাদের পাশে সরকার সহ গোটা দেশের মানুষ কিন্তুু এসব হত্যাকান্ডের পাশে কেউ নেই। এই নারায়ণগঞ্জে ওসমান পরিবারের সদর‌্যরা বেহেস্তে থাকেন। তাদের কখনো কোন কষ্ট হয়না। কারন সরকার তাদের পাশে থাকেন।’

নারায়ণগঞ্জ- ৪ এবং নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপিদের দৃষ্টি আকর্ষন করে এ সময় বক্তারা বলেন, তারা কখনোই এই হত্যাকান্ডের বিচার চায়নি পাশে দাঁড়ায়নি। নারায়ণগঞ্জের একজন এমপি বলে বেড়ান আমরা গুটি কয়েকজন লোক বসে এসব কি করি। আমরা আবারও বলতে চাই নারায়ণগঞ্জের গডফাদাররা অনেক হয়েছে, এবার আপনাদের হাত গুটান। এসপি সাহেবকে বলতে চাই দ্রুত শুভ্র হত্যার চার্জশীট দিন এবং এই হত্যার বিচার করুন। নারায়ণগঞ্জে আর যেন শুভ্রর মতো মেধাবী ছাত্র ও সাংবাদিককে আমাদের হারাতে না হয়। আর যেন কারো মায়ের বুক খালি না হয়।

অনুষ্ঠানে এ সময় বক্তব্য রাখেন, সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব কবি হালিম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এড. মাহাবুবুর রহমান মাসুম, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এড. এবি সিদ্দিক, সাধারন সম্পাদক আব্দুর রহমান, জেলা বাসদ এর সমন্বয়ক কমরেড নিখিল দাস, খেলাঘর সভাপতি রথিন চক্রবর্তী, গণসংহতির সমন্বয়ক তরিকুল সুজন সহ প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here