নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি: মেলার মাইকের আওয়াজে আসন্ন এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা পড়তে পারছে না। পারছে না পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১০ নং ওয়ার্ডের চিত্তরঞ্জন ফুটবল খেলার মাঠে চলছে এ মেলা। মেলার নেই কোন বৈধতা।
সিদ্ধিরগঞ্জের চিত্তরঞ্জন কটন মিল খেলার মাঠ সংলগ্ন ‘মা’ তিন গাট্রি পাগলিনীর ৪ দিন ব্যাপি ৪৬তম বাৎসরিক পবিত্র ওরশ মোবারকের নামে চলছে এ মেলা। প্রতিদিন মেলায় বসছে জুয়ার আসর। মেলা জুড়েই বিচরণ করে মাদক বিক্রেতা ও সেবীদের পদচারণা। মেলা চলে ভোর রাত পর্যন্ত। এতে এলাকাবাসীর ঘুমের পাশাপাশি ধর্মীয় কার্যাবলী সম্পন্ন করতে বিড়ম্বনায় পড়ছে।

এলাকাবাসী জানায়, ২৪ মার্চ শনিবার থেকে নাসিক ১০ নং ওর্য়াডের চিত্তরঞ্জন ফুটবল খেলার মাঠ সংলগ্ন ‘মা’ তিন গাট্রি পাগলিনীর ৪ দিন ব্যাপি ৪৬তম বাৎসরিক পবিত্র ওরশ মোবারক শুরু হয়। যা চলে ২৭ মার্চ পর্যন্ত। ৪ দিন ব্যাপী ওরশ শেষ হলেও চলছে মেলা। আয়োজকরা জানিয়ছেন এ মেলা চলবে পুরো একমাস। আর এ জন্য মেলায় আগত বিভিন্ন দোকানীদের কাছ থেকে তিন লাখ টাকা অগ্রীমও নিয়েছেন মাজার কমিটি।

মাসব্যাপী ওই চিত্তরঞ্জন মাঠে মেলার আয়োজনের উদ্যোগ নেয় মাজার পরিচালনা কমিটি। মাজার কমিটির সভাপতি মোঃ মোকসেদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামীম হোসেন এবং মেলা কমিটির কোষাধ্যক্ষ মোঃ আলী মাদবরের (স্থানীয় কাউন্সিলের ভায়রা) নেতৃত্বে এখানে মেলা বসানো হয়।

এ মেলায় প্রতিদিন বিকেল হতে উচ্চ আওয়াজে মাইকে রাত তিনটা পর্যন্ত বাউল গানসহ অন্যান্য গান বাজানো হয়। মেলার উচ্চ আওয়াজের কারণে একদিকে মেলাস্থালের পাশেই রসুলবাগ মসজিদের মুসুল¬ীদের যেমন সমস্যা হচ্ছে। অন্যদিকে মেলাস্থলের পাশের মাদরাসার ছাত্ররাও ঠিকমতো পড়ালেখা করতে পারছে না। এছাড়া আসন্ন এইচএসসি পরিক্ষার্থীদেরও লেখাপড়ায়ও বিঘ্ন ঘটছে। মেলার আয়োজকদের উপলক্ষ্য ওরশ হলেও মাসব্যপী মেলা বসানোর পায়তারা ছিল মাজার পরিচালনা কমিটির। প্রতিদিন মেলায় চলছে জাদু, জুয়া এবং অশ্লীল নৃত্য। এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক অঞ্চল) মোঃ শরফুদ্দিন জানান, ৪দিন ব্যপী ওরশের অনুমতি থাকলেও মেলার কোন অনুমতি ছিলনা। এজন্য মেলাটি বন্ধ করে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছি। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সার্বিক) আব্দুস সাত্তার জানায়, আমি কাগজ-পত্র যাচাই-বাছাই করে মেলা ভেঙ্গে দেব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here